bograsangbad_Logoদৈনিক ইত্তেফাক থেকে নেওয়া : গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ২৩ সেন্টিমিটার কমে বগুড়ার তিন উপজেলার বন্যা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে। তবে এ সব উপজেলার প্রায় ৩০ হাজার পরিবার এখনো পানিবন্দি রয়েছে।

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন প্রায় ৫ হাজার মানুষ। প্রায় ৮০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। পানি না বাড়লেও বন্যার্তদের দুর্ভোগ কমেনি। বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকটের পাশাপাশি পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। গবাদি পশুর খাবার সংকট এখন চরমে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী রুহুল আমীন জানান, শুক্রবার বেলা ১২টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় জেলার সারিয়াকান্দি, সোনাতলা ও ধুনট উপজেলা পয়েন্টে ২৩ সেন্টিমিটার কমে যমুনার পানি বিপৎসীমার ১০০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, অস্বাভাবিকভাবে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বগুড়া পরিচালন ও সংরক্ষণ বিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ৪৫ কিলোমিটার ব্রহ্মপুত্র বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধের (বিআরই) বিভিন্ন পয়েন্ট এখনো হুমকির মুখে।

জেলা ত্রাণ কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, বন্যাবকলতি এসব এলাকায় বানভাসিদের জন্য এ পর্যন্ত ৭০ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া কয়েক হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

দৈনিক ইত্তেফাক থেকে নেওয়া

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন