fbpx
বগুড়া জেলার সংবাদবগুড়া সদর

জেলা পুলিশের অভিযান অব্যাহত || বগুড়ায় কঠোর লকডাউনের ৫দিনে যানবাহনে ২২৮টি মামলায় ১০ লক্ষ ৮ হাজার টাকা জরিমানা

সঞ্জু রায়: বগুড়ায় লকডাউনে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন এবং মোটরযান আইন অমান্য করার বিভিন্ন অপরাধে গত ১ জুলাই থেকে দেশব্যাপী শুরু হওয়া কঠোর লকডাউনের দিন থেকে ৫ জুলাই সোমবার পর্যন্ত জেলা পুলিশের পৃথক অভিযানে মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাস, ট্রাক, পিক-আপ ও কাভার্ড ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহনে ডিজিটাল মিটারে মোট ২২৮টি মামলা দায়ের করে জরিমানা করা হয়েছে প্রায় ১০ লক্ষ ৮ হাজার টাকা।
লকডাউনের ৫ম দিনে বগুড়া শহরের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা যায়, শহরের প্রাণকেন্দ্র সাতমাথা, বনানী, বড়গোলা, মাটিডালি, ভিএম স্কুলের মোড়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ট্রাফিক বিভাগ ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের চেকপোস্ট বসিয়ে অভিযান চলমান ছিল। দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ নিজেই শহরজুড়ে দীর্ঘসময় অভিযান পরিচালনা করেছেন সেখানে দেখা যায় কারণে অকারণে মানুষের বাইরে বের হওয়ার প্রবণতা অনেক বেশী। শুধু মোটরসাইকেল নয় প্রাইভেট কার ব্যবহার করেও হাতে প্রেসক্রিপশন রেখে ঘুরে বেড়াচ্ছে শহরে সচেতন মানুষদের অনেকে। আবার এ্যাম্বুলেন্সে করে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে এমন ঘটনাও চোখে পড়েছে শহরে। তবে যারা সত্যিকার অর্থেই বিভিন্ন প্রয়োজনে বাহিরে বের হয়েছেন তাদের চেকপোস্টে কোন প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হয়নি তবে মানুষকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং সাথে সচেতন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বেশ হিমশিম খেতেই হচ্ছে দিনব্যাপী মর্মে দেখা গেছে।
বগুড়ার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রফিকুল ইসলাম এর প্রদানকৃত তথ্য অনুয়ায়ী, সোমবার সকাল ৬টা থেকে রাত পর্যন্ত সারাদিনে মোট ৮৩টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে। যেখানে বিভিন্ন অপরাধে ডিজিটাল স্লিপে জরিমানা করা হয় ৩ লক্ষ ৭১ হাজার ৫’শ টাকা। এছাড়াও কাগজপত্র প্রদর্শনে ব্যর্থ হওয়ায় আটক করা হয়েছে ৯টি মোটরসাইকেল।
বগুড়া জেলা পুলিশের মিডিয়া মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ফয়সাল মাহমুদ জানান, সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে বগুড়ায় পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম (বার) এর নেতৃত্বে জেলার সকল স্থানে পুলিশ সদস্যরা তাদের সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করে যাচ্ছে। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট, শহরজুড়ে রয়েছে পুলিশের টহল দল, দায়িত্বরত রয়েছে পোষাক ও সাদা পোষাকে পুলিশের বিভিন্ন টিম তারপরেও মানুষের নিত্যদিনের চাহিদা কিংবা নানা অযুহাতের কাছে গণমানুষকে ঘরমুখী করতে ব্যাপক হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশ সদস্যদের। তিনি দেশ ও দশের স্বার্থে সকলকে সচেতনতার সাথে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আহ্বান জানান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − six =

Back to top button
Close