বগুড়া সংবাদ ডট কম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) : বগুড়ার কাহালু পৌর বাজার সংলগ্ন গত রোববার রাত পৌনে দশটার দিকে দুইটি দোকানে আগুন লেগে দোকান ও দোকান সংলগ্ন দুইটি বাড়ির আসবাবপত্র পুড়ে গেছে। এতে দোকানের মালিক ৬০ লক্ষ টাকার ক্ষতির দাবি করেছেন। রাতে বগুড়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে প্রায় ১ ঘন্টা পর আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছেন। রাতেই কাহালু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আরাফাত রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কাহালু পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মোঃ হেলাল উদ্দিন কবিরাজ, বগুড়ার সহকারি পুলিশ সুপার (নন্দীগ্রাম সার্কেল) আনোয়ার হোসেন, কাহালু থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত কবির, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও দোকানের মালিকরা জানান, কাহালু বাজারের স্টেশন রাস্তায় ‘মেসার্স হারুন ট্রেডার্স’ ও ‘আদর্শ রান্না ঘর’ নামে দুইটি দোকান অবস্থিত। হারুন ট্রেডার্সের দোকানে সার, কীটনাশক বেচাকেনা এবং আদর্শ রান্না ঘর দোকানে গ্যাস সিলিন্ডার সহ বিভিন্ন রান্নার সরঞ্জাম বিক্রি করতো। হারুন ট্রেডার্সের মালিক হারুন অর রশিদ ও রান্না ঘরের মালিক আব্দুল হান্নান। দোকান সংলগ্ন দুই ভাইয়ের বাড়ি। রাতে দোকানের কেনাবেচা শেষে দোকান বন্ধ করে তাঁরা বাড়িতে যান। রাত পৌনে দশটার দিকে হইচই শুনে তাঁরা দেখতে পান দোকানে ধুঁয়া বের হচ্ছে। দোকানের তালা খুলে দোকানে ঢোকার আগেই দোকানের সব মালামাল পুড়ে গেছে। রান্না ঘর দোকানে গ্যাসের সিলিন্ডারগুলো বিকট শব্দে ফেটে যাওয়ায় আগুনের লাভা আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে। বিকট শব্দে এলাকায় আতংক ছড়ে পড়ে। এরপর দোকানের আগুন তাদের বাড়িতে ছড়িয়ে পড়লে বাড়ির আসবাবপত্র পুড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে বাড়ির লোকজন বাড়ি থেকে বের হওয়ায় তাঁরা রক্ষা পান। বগুড়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে প্রায় ১ ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
দোকানদার আব্দুল হান্নান বলেন, বিদ্যুতের সর্ট সার্কিট থেকেই তাঁর ভাইয়ের দোকানে আগুন লেগে যায়। সেখান থেকে তাঁর দোকানে আগুন লেগে যায়। এরপর বাড়িতেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। দুই ভাইয়ের দোকান ও বাড়ির আসবাবপত্র পুড়ে যাওয়ায় ৫৫-৬০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
এ ব্যাপারে কাহালু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আরাফাত রহমান বলেন, আগুন লাগার পর পরই ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তাঁদের তাৎক্ষণিকভাবে ঢেউ টিন ও নগদ কিছু টাকা দেওয়া হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ হিসেব করে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কার্যালয়ে পাঠানো হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন