fbpx
বগুড়া জেলার সংবাদশাজাহানপুর

সন্ত্রাসীদের ভয়ে আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনা মামলা দায়ের

বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়ার শাজাহানপুরে সন্ত্রাসীদের ভয়ে মোখলেছার রহমান (৫০) নামে এক শ্রমিকের আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মোখলেছার রহমান উপজেলার ফুলদীঘি পূর্বপাড়ার ভুঞা প্রামনিকের ছেলে। তিনি দিন মজুর হিসেবে কাজ করতেন।

রবিবার নিহত মোখলেছার রহমানের স্ত্রী নাছিমা আক্তার বাদি হয়ে শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় এক বোনজামাই তিন ভাগিনাসহ এজাহারভুক্ত ৫ জন এবং অজ্ঞাতনামা ৫ জন মোট ১০ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলার বাদি নাছিমা আকতার জানান, তার স্বামীর পৈত্রিক বসতভিটা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবদ বোনজামাই ও ভাগিনাদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। কিছু দিন আগে তাদের নিজ বসতবাড়ির জায়গায় ইটের বাড়ি নির্মাণ করেন। বাড়ি নির্মাণের পর বোনজামাই আছির উদ্দিন ও তিন ভাগিনা লিটন মিয়া (৩৬), মুনসুর আলী (৪০) ও শামছুল হক (৩০) বাড়ির জমি দাবী করে নবনির্মিত বাড়ি ভেঙ্গে নেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। এতে রাজি না হলে বিভিন্ন ধরনে হুমকি-ধামকি দিয়ে ১ লক্ষ টাকা দাবি করে। এবিষয়ে থানায় জিডিও করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধার দিকে বোনজামাই ও ভাগিনারা বহিরাগত সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে নিয়ে এসে তার স্বামী মোখলেছার রহমানকে হাত-মুখ বেঁধে জোর পূর্বক মটরসাইকেলে তুলে নিয়ে গিয়ে মারপিট করে। ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সাদা স্ট্যাম্পের উপর স্বাক্ষর করে নেয় এবং বলে তোর সমস্ত সম্পত্তি লিখে নিলাম। একপর্যায়ে থানা পুলিশ বা কাউকে কিছু বললে দুই সন্তান সহ সবাইকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেয়। সেখান থেকে বাড়িতে আসার পর তার স্বামী সন্ত্রাসীদের ভয়ে এবং সম্পত্তি হারানোর ভয়ে ভীত হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে মানসিক চাপ সহ্য করতে না পেরে শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে সবার অগোচরে শয়ন ঘরে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে সাথে সাথে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ভোর রাত সাড়ে ৪টার দিকে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মারা যান।

শাজাহানপুর থানার ওসি আজিম উদ্দিন জানান, আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তার করতে জোর চেষ্টা চলছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 2 =

Back to top button
Close