fbpx
কাহালুবগুড়া জেলার সংবাদ

কাহালুর মুরইল ইউ পি সদস্য মানিক মিয়ার উপরে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে এলাকাবাসীর মানব বন্ধন

বগুড়া সংবাদ ডট কম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) : বগুড়ার কাহালুর মুরইল ইউ পি সদস্য মানিক মিয়ার উপর হামলাকারী মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবীতে মঙ্গলবার বেলা ১১টা হতে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত অত্র ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরের সামনে সড়কে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করেন এলাকাবাসী
উক্ত মানব বন্ধন কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন মুরইল ইউ পির ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল ওহাব তালুকদার, এলাকাবাসীর মধ্যে মকবুল হোসেন প্রামানিক, আফজাল শেখ, হযরত আলী, মন্টু মিয়া, মাহফুজার রহমান, আব্দুল মান্নান, আব্দুর রাজ্জাক, মিনার হোসেন সহ এলাকার প্রায় ২ শত নারী ও পুরুষ।
উল্লেখ্য যে, মাতৃকালিন ভাতা ও বয়স্ক ভাতার কার্ড সংক্রান্ত বিষয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচারে নিষেধ করায় গত ১২ জুলাই মুরইল ইউ পি ৫নং ওয়ার্ড সদস্য মো. মানিক মিয়া (৫২) কে মারপিট করে গুরুতর আহত করেন প্রতিপক্ষরা।
এ ঘটনায় গত ১২ জুলাই মুরইল ইউ পি সদস্য মানিক মিয়া বাদী হয়ে কাহালু থানায় ৭ জনকে এজাহার ভুক্ত সহ অজ্ঞাতনামা আরও ২/৩ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, কাহালু উপজেলার মুরইল মাস্টার পাড়ার মৃতঃ পোনা পাগলার ছেলে মামলার আসামী টুটুল হোসেন কিছুদিন হলে মুরইল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের লোকজনদের খবর দেয় যে, মাতৃকালিন ভাতা ও বয়স্ক ভাতার কার্ড ইউ পি সদস্য মানিক মিয়ার কাছে আসিয়াছে। কার্ড করার জন্য টুটুল হোসেন লোকজনের নিকট হইতে টাকা পয়সা নেন। উক্ত সংবাদ শুনে ওয়ার্ডের লোকজন ইউ পি সদস্যের বাসায় ভিড় করতে থাকে ।
এ ধরনের মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদ করলে পরিকল্পিত ভাবে ইউ পি সদস্য মানিক মিয়াকে বাড়ী থেকে মোটর সাইকেল যোগে ডেকে নিয়ে গত ১২ জুলাই সকালে উপজেলার মুরইল মাস্টার পাড়ার মৃতঃ পোনা পাগলার ছেলে মামলার আসামী সাগর মাস্টার (৫০), টুটুল হোসেন (৩২) এবং তাদের স্ত্রী রহিমা বেগম (৪০) ও ফেন্সি বেগম (২৮), একই গ্রামের বাবলু শেখের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন (২২), মুরইল বিষ্ণপুর গ্রামের মোজাহার প্রাং এর ছেলে হাফিজার রহমান (৩৫) এবং মুরইল ধর পাড়ার টুকু মিয়ার ছেলে বাবু (৫০) ১নং আসামীর বাড়ীর সামনে এলোপাথারি ভাবে তাকে মারপিট করে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন ইউ পি সদস্য মানিক মিয়াকে গুরুত্বর অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + 1 =

Back to top button
Close