শেরপুর

পথ্যের টেন্ডার না পেয়ে শেরপুরে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার হা-পা ভেঙে দেয়ার হুমকি

বগুড়া সংবাদ ডটকম শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি
হাসপাতালে রোগীদের পথ্য সরবরাহের টেন্ডার বাগিয়ে নেয়ার জন্য বগুড়ার শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল কাদেরকে হাড় গুড়া করে দেয়ার হুমকী দেয়া হয়েছে।
গতকাল ১৫ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ডা. আব্দুল কাদের বগুড়া শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি রফি নেওয়াজ খান রবিনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে তিনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে শেরপুর থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন।
ডা. আব্দুল কাদের বলেন, শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিকৃত রোগীদের মানসম্মত খাদ্যের জন্য পথ্য সরবরাহের কাজে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের অনুকুলে গত ৬ অক্টোবর দরপত্র বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। নিয়ম অনুযায়ি দরপত্র জমা ও খোলা হয় ২৮ অক্টোবর। এ দরপত্রে মেসার্স আলম এন্টারপ্রাইজ প্রো. নুরে আলম সানি, শেরপুর, বগুড়া), শেখ এন্টারপ্রাইজ (প্রো. এজাজুল হক ডনেল, বগুড়া মালতীনগর) ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান রবিন ট্রেডিং হাউজ( প্রো. রফি নেওয়াজ খান রবিন, খান মার্কেট, বগুড়া) অংশ গ্রহণ করে। পথ্য সরবরাহে নিময়মানুযায়ী সর্বনি¤œ দরদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে বগুড়ার শেখ এন্টারপ্রাইজের পক্ষে এজাজুল হক ডনেল নির্বাচিত হয়। সংবাদ পেয়ে বগুড়ার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রবিন ট্রেডিং হাউজের কর্ণধার প্রভাবশালী নেতা রফি নেওয়াজ খান রবিন গত ১২ জানুয়ারি দুপুর ১২.৪০ মিনিটে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন দিয়ে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য প.প. কর্মকর্তা ডা. আব্দুল কাদেরকে ওই পথ্য সরবরাহের কাজ পেতে অনৈতিক চাপ দেয়। এসময় ডা. আব্দুল কাদের নিয়মনীতির কথা বললে রফি নেওয়াজ খান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার হাড়গোর ভেঙে ফেলাসহ নানা ভয়ভীতির হুমকীও দেন। রফি নেওয়াজ খান রবিন বগুড়া সদর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও গাবতলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ।
এঘটনার প্রেক্ষিতে গত ১৩ জানুয়ারি শেরপুর থানায় জিডি নং ৬০৩/২০২০ দায়েরসহ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সিভিল সার্জনকে অবহিত করেছেন বলে জানিয়েছেন ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। সংবাদ সম্মেলনকালে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার(আরএমও) ডা. মোকছেদা খাতুন, ডা. নাজনীন আকতার, ডা. সাজিদ হাসান লিংকন, দন্ত সার্জন ডা. আবু হাসান, ডা. আরিফা মৌসুমীসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অন্যান্য কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
এব্যপারে বগুড়া শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি রফি নেওয়াজ খান রবিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয় বলে দাবী করেন। শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির উক্ত ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী নেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ এ প্রসঙ্গে বলেন, ঘটনাটি অত্যান্ত দুঃখজনক। এ ধরণের ঘটনা কোনভাবেই কাম্য নয়। তিনি বিষয়টি জানার পরপরই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন বলে দাবি করেন এই কর্মকর্তা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − 2 =

Back to top button
Close