fbpx
ধুনটবগুড়া জেলার সংবাদ

ধুনটে বিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধভাবে দোকান নির্মান করে লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনট উপজেলার খাটিয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে
অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মান করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল হামিদ টুকুর বিরুদ্ধে। বিদ্যালয়ের মাঠেঅবৈধভাবে দোকানঘর নির্মান করায় শিক্ষার পরিবেশ ও খেলাধুলার পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে। এবিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী বিদ্যালয়ের মাঠে ওই অবৈধ নির্মান কাজ বন্ধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। জানাগেছে, উপজেলার গোপালনগর ইউনিয়নে ১৯৬৭ সালে প্রায় ১০ বিঘা জমিতে খাটিয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। ২০১১ সালে খাদুলী গ্রামের আব্দুল কাদের বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৮ সালে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল হামিদ টুকু বিদ্যালয়টির পূর্ব ও দক্ষিণ পার্শ্বের খেলার মাঠের জায়গায় অবৈধভাবে ১১টি দোকান ঘর নির্মান করে প্রায় ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এছাড়া প্রতিটি দোকানঘর থেকে প্রতিমাসে ৫০০ টাকা করে আদায় করে পকেটে ভরছেন প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের ও সভাপতি আব্দুল হামিদ টুকু। সম্প্রতি তারা বিদ্যালয়ের দক্ষিন-পূর্ব পাশ্বের দেয়াল ভেঙ্গে ও গাছ কেটে মাঠের জায়গায় আরো ৫টি দোকান ঘর নির্মানের কাজ শুরু করেছেন। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ ও খেলাধুলার পরিবেশ বিঘিœত হওয়ায় বুধবার দুপুরে স্থানীয় এলাকাবাসী ওই অবৈধ দোকানঘর নির্মান কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। এঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য রফিকুল ইসলাম ও শফিকুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের ও সভাপতি আব্দুল হামিদ টুকুবিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মান করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। এভাবে অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মান করায় বিদ্যালয়ের মাঠ ছোট হয়ে আসছে। একারনে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা করতে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া দোকানঘরে লোকজনের সমাগম হওয়ায় শিক্ষার পরিবেশও বিঘিœত হচ্ছে। তাই বিদ্যালয়ের মাঠে দোকানঘর নির্মান বন্ধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা। এবিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তে দোকানঘর নির্মান করা হচ্ছে। তবে এবিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কোন অনুমোদন পাননি। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম জিন্নাহ্ধসঢ়; বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে দোকনঘর নির্মান করে ভাড়া দেওয়ার কোন নিয়ম নেই। তাই এবিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধভাবে দোকনঘর নির্মানের মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। তাই এবিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে
জানান তিনি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 − 3 =

Back to top button
Close