আদমদিঘিবগুড়া জেলার সংবাদ

আদমদীঘিতে শিক্ষক রহমতের বে-রহমতি শাসনে হাত ভাঙ্গল ছাত্রের

বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : শিক্ষকের প্রচন্ড জোড়ে মাড়া চড়ের আঘাতে মেঝেতে পড়ে গিয়ে তৃতীয় শ্রেনির এক ছাত্রের হাতের কব্জি ভেঙ্গে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২১অক্টোবর সোমবার বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সাওইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। গত ১০দিন ধরে ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে রাখার পর বৃহস্পতিবার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ওই শিক্ষককে কারণদশাও নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে দাবী করা হয়েছে। জানা গেছে, ২১ অক্টোবর বিদ্যালয়ে বেলা পৌনে তিনটায় তৃতীয় শ্রেনিতে ইসলাম ধর্ম বিষয়ক ক্লাস ছিল। শিক্ষক এস,এম রহমত আলী ক্লাসের পড়া দিয়ে বিদ্যালয়ের ওয়াস রুমে যায়। এই ফাঁকে সিয়াম, রুহুল ও সাফি নামের তিন সহপাঠি ইয়ার্কি করার এক পর্যায়ে মারামারিতে লিপ্ত হয়। এ সময় অপর সহপাঠি শিবলী আল নোমনের পায়ে ব্রেঞ্চ পড়ে আঘাত প্রাপ্ত হয়। তাকে সেবা করার সময় ওয়াম রুম থেকে ফিরে ঘটনা জানতে পেরে বেজায় ক্ষিপ্ত হয় শিক্ষক রহমত আলী। তিনি মারামারিতে লিপ্ত ওই তিন ছাত্রদের সজোড়ে চর- থাপ্পড় দিতে থাকে। প্রচন্ড জোড়ে মাড়া চড়ের আঘাতে সিয়াম নামের ওই ছাত্র ক্লাসের মেঝেতে পড়ে যায়। এতে তার হাতের কব্জিতে গুরুত্বর আঘাত লাগে। ঘটনার দুই দিনও সে কিছু বুঝতে না পারলেও পরে ক্রমেই ব্যাথা বাড়তে থাকে। পড়ে তার মা সিমা বেগম নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা করে। পরীক্ষায় সিয়ামের হাতের কব্জি ভেঙ্গে গেছে বলে জানায় হাসপাতালের চিকিৎসক। পড়ে হাতে ব্যান্ডেজ করে চিকিৎসার ব্যবস্থাপত্র দেন। এদিকে ঘটনার পর দিন থেকে গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত শিক্ষক মন্ডলী এবং পরিচালনা কমিটি সিয়ামের পরিবার-পরিজনকে নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক করে। এসব বৈঠকে অভিযুক্ত শিক্ষককে ভৎসনা করা এবং আঘাত পাওয়া ছাত্রের পরিবারের নিকট ক্ষমা নেয়া হয়। তবে চিকিৎসা খরচ দিতে চাইলেও তারা তা প্রত্যাক্ষান করে। সরেজমিন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশিদ অভিযুক্ত শিক্ষক কে কারণদর্শাও নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × five =

Back to top button
Close