কাহালুবগুড়া জেলার সংবাদ

এম পি মোশারফ হোসেনের উন্নয়ন বরাদ্দ পেয়ে কাহালু- নন্দীগ্রাম উপজেলার সকল পেশাজীবি মানুষ খুব খুশি

বগুড়া সংবাদ ডট কম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) :জিয়া শিশু কিশোর পরিষদের সহ- সভাপতি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় এর সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বগুড়া-৪, কাহালু-নন্দীগ্রাম এলাকার সংসদ সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব মোঃ মোশারফ হোসেন এর উন্নয়ন বরাদ্দ পেয়ে কাহালু-নন্দীগ্রাম এলাকার সকল পেশাজীবি মানুষ খুশি। কাহালু ও নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন বরাদ্দ পাওয়া মসজিদ, মক্তব, মাদ্রাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান গণের সাথে কথা বলা হলে তারা জানান, এম পি আলহাজ্ব মোঃ মোশারফ হোসেন আমাদেরকে বলে দিয়েছেন আপনাদেরকে যে উন্নয়ন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে সেখান
থেকে দলীয় নেতাকর্মী সহ কাউকে ১ টাকাও দিবেন না। আমি নিজে দূর্নীতি করবো না কাউকে দূর্নীতি করতে দিবে না। কাহালু উপজেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক কাজী আব্দুর রশিদ জানান, আলহাজ্ব মোঃ মোশারফ হোসেন এম পি হওয়ার আগ থেকে এখন পর্যন্ত কাহালুর সকল বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ একসঙ্গে দলীয় কর্মসূচী পালন করে আসছে। তিনি আরও বলেন, ৯ সেপ্টেম্বর/১৯ইং তারিখে কালের কণ্ঠ পত্রিকায় কাহালুতে বিএনপির নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক ভাবে দলীয় কর্মসূচী পালন করে আসছেন সেই সংবাদ ছাপানো হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। কালের কন্ঠ পত্রিকার বগুড়ার নিজস্ব প্রতিবেদক ও নন্দীগ্রাম প্রতিনিধিকে কাহালু উপজেলায় সরিজমিনে এসে এম পি সাহেবের উন্নয়ন বরাদ্দের সচিত্র তুলে ধরার আহবান জানান। এ ব্যাপারে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় এর সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বগুড়া-৪, কাহালু-নন্দীগ্রাম এলাকার সংসদ সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি আলহাজ্ব মোঃ মোশারফ হোসেন এর সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, নির্বাচনে আমার প্রতিদন্দ্বীর সংখ্যা ছিল বেশি। নির্বাচন যারা মনোনয়ন পায়নি তারাই এখন আমার অপপ্রচার চালাচ্ছেন। আমি দলে কোন বিভাজন রাখিনি। কাহালু ও নন্দীগ্রাম উপজেলার বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের প্রবীন ও নবীন নেতাকর্মীদেরকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করছি। দুই উপজেলায় উন্নয়ন বরাদ্দ সর্ম্পকে বলেন আমি নিজে দূর্নীতি করবো না কাউকে দূর্নীতি করতে দিবে না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 12 =

Back to top button
Close