বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনট উপজেলার জালশুকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জায়গা থেকে অবৈধভাবে ২ লাখ টাকা মূল্যের ১০টি গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসীর অভিযোগে এবিষয়টি তদন্ত শুরু করেছেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।
এলাকাবাসীর অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, উপজেলার জালশুকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নুরুল ইসলাম সরকার ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা উপজেলা শিক্ষা কমিটি ও বন বিভাগের অনুমতি ছাড়াই গত এক সপ্তাহ আগে স্কুলের জায়গা থেকে ৮টি মেহগনি গাছ, ১টি পাউকড় ও একটি পিঠাকড়া সহ ১০ টি গাছ কেটে স্থানীয় এক কাঠ ব্যবসায়ীর কাছে ২ লাখ টাকায় অবৈধ ভাবে বিক্রি করেছেন। এবিষয়ে এলাকাবাসী পক্ষে আরিফুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি গত ১০ জুলাই উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগটি আমলে নিয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল হাসান বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছেন।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নিলুফা ইয়াসমিন বলেন, বিদ্যালয়ের জায়গা থেকে ম্যানেজিং কমিটি ৪টি গাছ কেটেছেন।
তবে এবিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নূরুল ইসলাম সরকারের মোবাইলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা হলে তিনি ফোন রিসিফ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল হাসান জানান, গাছ কাটার অভিযোগটি তদন্ত করা হচ্ছে। তবে প্রাথমিক তদন্তে বন বিভাগ ও উপজেলা শিক্ষা কমিটির অনুমোদন ছাড়াই ১০টি গাছ কেটে স্থানীয় একটি ছ-মিলে রাখার প্রমান পাওয়া গেছে। এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন