বগুড়া সংবাদ ডট কম(নামুজা প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন): ১৬ এপ্রিল হয়রানি বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন ও গ্রামে সামাজিক পরিবেশ বিনষ্টকারী অ-সামাজিক কার্যপরিচালনাকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করুন। বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলার কাইল ইউপির উতড়া গ্রামের জনসাধারণ কর্তৃক ১৬ এপ্রিল মানববন্ধন করেন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন মহলে স্বারকলিপি প্রদান করেন। উক্ত স্বারক লিপিতে লিখা হয়েছে গত ১১-৪-২০১৮ তারিখ রাতে উতড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের বাড়ীতে মটর সাইকেল যোগে আঃ রাজ্জাক পিতা মৃত মেহের আলী সাং নামুজা মসজিদপাড়া থানা বগুড়া সদর, জেলা বগুড়া প্রবেশ করে যা গ্রামবাসীর দৃষ্টি গোচরে আসে। ১২-৪-২০১৮ গভীর রাতে আঃ রাজ্জাক ও সামছুন্নাহার মিষ্টিকে এলাকাবাসী শতশত জনসাধারণ আপত্তিকর অবস্থায় একই ঘরে দুইজনকে দেখতে পায় এবং তার স্বামী রফিকুল ইসলামকে আলাদা ঘরে দেখতে পায়। জনতা এইরুপ অ-সামাজিক কার্যকলাপে প্রতিবাদ করলে আঃ রাজ্জাক দ্রুত পালাতে গিয়ে পড়ে গিয়ে কিছুটা আঘাত প্রাপ্ত হয়। এই অবস্থায় জনতার রোষানল বাড়লে কাহালু থানা প্রশাসকে গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে অবহিত করা হয়। থানার একজন সাব-ইন্সপেক্টর এর নেতৃত্বে তিনজন পুলিশ ঘটনার স্থলে উপস্থিত হয় এবং ঘটনার বিবরণ জনসাধারণের মুখে শুনে অ-সামাজিক কার্যকালাপকারী আঃ রাজ্জাক সামছুন্নাহার মিষ্টি ও রফিকুল ইসলামকে থানায় নিয়ে যায়। সঙ্গে প্রত্যক্ষ দর্শীদের মধ্যে থেকে নিজ জামাই সাদ্দাম হোসেন পিতাঃ আফজাল হোসেন ও কন্যা হাবিবা স্বামী সাদ্দাম হোসেনকে ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ জানতে থানায় নিয়ে যায় এবং গ্রামবাসীদের আশস্তকরে যে, সাদ্দাম হোসেন ও হাবিবাকে জিজ্ঞাসা বাদ শেষে স্ব-সম্মানে বাড়ীতে পৌছে দেওয়া হবে। কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় এইযে, অ-সামাজিক কাজে লিপ্তকারীদের ছেড়ে দিয়ে গ্রামের নিরীহ জনসাধারণের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট, হয়রানি ও ষড়যন্ত্র মূলক মামলা কাহালু থানার ১২/৬৬ নং মামলা রুজু করে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন