fbpx
বগুড়া জেলার সংবাদবগুড়া সদর

বগুড়ায় র‌্যাবের অভিযানে চাঞ্চল্যকর রকি হত্যাকান্ডের মূলআসামীসহ গ্রেফতার ৭

সঞ্জু রায় : বগুড়া ফাঁপোড়ে আওয়ামী লীগ নেতা মমিনুল ইসলাম রকি (৩৭) হত্যাকান্ডে বিদেশী পিস্তল ও দেশীয় অস্ত্রসহ হত্যা মামলার মূল আসামীসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর সদস্যরা।
শুক্রবার দিবাগত রাতে রংপুর জেলার বদরগঞ্জ উপজেলা ও বগুড়ার ফাঁপোড় ইউনিয়নে পৃথক দুটি অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃতরা হলেন রকি হত্যায় মূল অভিযুক্ত গাউছুল আজম (২৮), ফুয়াদ হাসান মানিক (২৯) সহ মেহেদী হাসান (১৮), আলী হাসান (২৮), আরিফুর হাসান (২৮), ফজলে রাব্বী (৩০) ও আব্দুল আহাদ (২০)।
শনিবার দুপুর ১২টায় বগুড়া র‌্যাব-১২ এর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক প্রেফ ব্রিফিং এ গ্রেফতার ও অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১২ এর কোম্পানী কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন (জি), বিএন। প্রেস ব্রিফিং এ তিনি বলেন, রকি হত্যাকান্ডের পর থেকেই তাদের অভিযান চলমান ছিল। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তারা শুক্রবার গভীর রাতে প্রথমে রংপুরের বদরগঞ্জ থানায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং সেখান থেকে এজাহারভুক্ত আসামীসহ মোট ৫ জনকে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে তাদের দেয়া তথ্যমতে বগুড়ার ফাঁপোড় থেকে হত্যাকান্ডের মূল আসামী গাউসুল ও মানিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় তাদের হেফাজত থেকে উদ্ধার করা হয় একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, তিন রাউন্ড গুলি ও একটি চাপাতি যা রকি হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত হয়েছে বলে জানান তিনি। গ্রেফতারকৃতদের মাঝে ৪ জন এজাহারভুক্ত এবং বাকী ৩ জন ঘটনায় সরাসরি জড়িত বলে জানান তিনি। হত্যার কারণ প্রসঙ্গে লে: কমান্ডার মামুন প্রেস ব্রিফিং এ জানান, আসন্ন ফাঁপোড় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে রকির চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হওয়ায় ছিলো হত্যাকান্ডের অন্যতম কারণ। আধিপত্য বিস্তার ও ক্ষমতার লড়াইয়ে এই খুন হয়েছে মর্মে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নিশ্চিত হয়েছেন তারা। কারণ অভিযুক্তদের ধারণা ছিল রকি চেয়ারম্যান হলে এলাকায় তাদের মাদক বাবসা, সুদের ব্যবসাসহ সকল অবৈধ কাজ বন্ধ হয়ে যাবে৷ এজন্য গাউসুল ও মানিক তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। তার প্রেক্ষিতে এলাকায় গড়ে উঠা নিজস্ব বাহিনী দ্বারা রকিকে পরিকল্পিতভাবে কুপিয়ে হত্যা করে এই বাহিনী। ব্রিফিং এ র‌্যাব-১২ এর পক্ষে কোম্পানী কমান্ডার আরো বলেন, র‌্যাবের এ ধরণের পলাতক আসামী গ্রেফতার অভিযান কার্যক্রম চলমান থাকবে এবং ভবিষ্যতে আরো জোরদার করা হবে। এছাড়াও সুষ্ঠু আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখতে সকল ধরণের অপরাধীদের কঠোর হুশিয়ারী দেন এই কর্মকর্তা। শনিবার বিকেলে গ্রেফতারকৃত এই ৭ আসামীকে বগুড়া সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে মর্মে জানা যায়। উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাত আনুমানিক সোয়া ৯টার সময় শহরতলীর ফাঁপোড় ইউনিয়নের হাটখোলা এলাকায় রকিকে গাউসুলের নেতৃত্বে পূর্ব শত্রুতার জেরে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরে বগুড়া শজিমেকে ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার আছর নামাজ পরে জানাজা শেষে তার মরদেহ শহরের বৃন্দাবন পাড়াতে দাফন করা হয়। রকি ফাঁপোড় মন্ডলপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে এবং আসন্ন ফাঁপোর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − 4 =

Back to top button
Close