বগুড়া সংবাদ ডট কম : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সোমবার সকালে রিফাআ ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের মহান স্বাধীনতা দিবসে দু:স্থ শিশুদের মাঝে খাবার ও শিক্ষা সহায়ক উপকরণ বিতরণ করে। উক্ত খাবার ও শিক্ষা সহায়ক উপকরণ বিতরণ করেন সংস্থার জেনারেল সেক্রেটারী এ্যাড. মনোয়ারা খাতুন সোহানা। এসময় তিনি বলেন, এ দেশে দু:স্থ শিশুদের সামাজিকভাবে গড়ে তোলার দায়িত্ব আমাদের সবারই। দেশের সকল শিশুদের প্রতি আমাদের অনেক দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে। লাল সবুজের ভুখন্ড বাংলাদেশকে স্বাধীন করার ক্ষেত্রে আবালবৃদ্ধবনিতার যেমন সম্পৃক্ততা ছিল ঠিক তেমনি এদেশের দু:স্থ শিশুদের ৫টি মৌলিক চাহিদা অন্ন, বস্ত্র, শিক্ষা, চিকিৎসা ও বাসস্থানের নিশ্চিতকরণের লক্ষে আমাদের প্রত্যেকরই দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে। ৫টি মৌলিক চাহিদা ছাড়াও নিরাপত্তা ও বিনোদন অত্যন্ত জরুরী। এদিকেও নজর দেয়া হলে আজকের দু:স্থ শিশুরা হবে দেশ উন্নয়নে এক মাইল ফলক। বিশ্বের ইতিহাস থেকে আমরা শিক্ষা নিতে পারি এ জগতে যারা শীর্ষ পর্যায়ে পৌছেছে তাদের অধিকাংশই তোমাদের মত পরিবার থেকেই আসছে। প্রবাদ আছে “ জন্ম হোক যথাতথা কর্ম হোক ভাল”। তোমাদের জন্ম ডাক্তারের ঘরে অথবা ইঞ্জিনিয়ারের ঘরে হয় নি তাতে কি হয়েছে ! তোমরা একদিন সুশিক্ষায় শিক্ষিত ও সুনাগরিক হয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করবে। তোমরাই হবে দেশ গড়ার কারিগর, দেশের উন্নয়নের রোল মডেল। আমাদের স্বাধীন বাংলার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার অজপাড়া গ্রাম টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নিলেও তিনি অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে বাঙ্গালী জাতির হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিল। এ নেতার জন্ম না হলে দেশ স্বাধীন হতো না। আজ স্বাধীন দেশ, স্বাধীন জাতিস্বত্বা, স্বাধীন ভুখন্ড, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঠিক নেতৃত্ব, প্রেরণা ও সাহসিকতা দ্বারা আমরা পেয়েছিলাম। তাঁর ৭মার্চ এর ভাষণ জাতিসংঘের ইউনেস্কো কর্তৃক আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতী পেয়ে আমাদের বাঙালী জাতিকে বিশ্বের নিকট সমৃদ্ধশালী করেছে। এসংস্থাটি সমাজের অবহেলিত, দু:স্থ, সুবিধাবঞ্চিত, আর্ত পীড়িত, অতি দরিদ্র জনগোষ্টির জন্য কাজ করছে। তোমরা এ সংস্থার জন্য দোয়া করবে। সংস্থাটি তিল তিল করে বৃহৎ পরিসরে সমাজের অবহেলিত মানুষের জন্য কাজ করতে পারে। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অবসরপ্রাপ্ত উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো: সানাউল হক, কোষাধ্যক্ষ আবু সৈয়দ সফিউদ্দীনসহ সংস্থার সদস্যবৃন্দ। [খবর বিজ্ঞপ্তি]

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন