বগুড়া সংবাদ ডট কম : আগষ্ট মাসে দেশের সামগ্রিক মানবাধিকার পরিস্থিতির ইতিবাচক কোন পরিবর্তন হয়নি বলে মনে করে দেশের অন্যতম মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা। সংস্থার মাসিক পর্যবেক্ষণ ও গবেষণার মাধ্যমে আগষ্ট মাসের এ চিত্র সামনে আসে। পারিবারিক ও সামাজিক নৃসংশতার বিষয়টি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে যা উদ্বেগজনক। এছাড়াও শিশু হত্যা, শিশু ধর্ষণ, গণ ধর্ষণ,পারিবারিক ও সামাজিক কোন্দলে আাহত ও নিহত, নারী নির্যাতন, রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনাগুলি ছিল উল্লেখযোগ্য এ মাসে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার আগষ্ট মাসের মনিটরিং-এ পাওয়া তথ্য-উপাত্ত থেকে দেখা যায়:

ধর্ষণ ঃ আগষ্ট মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১০২ জন নারী ও শিশু । এদের মধ্যে শিশু ৪০জন। ৪৩ জন নারী। ১৭ জন নারী গণ ধর্ষণের শিকার হন ও ২ জনকে ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়। এ মাসে চলন্ত বাসে এব তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে বাসের কর্মচারীরা। মিরপুরে এক গৃহবধূ নিজ ঘরে ধর্ষণে শিকার হয়। ঢাকা , চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে ধর্ষণের ঘটনা বেশী।

আত্মহত্যা ঃ আগষ্ট মাসে সারা দেশে আত্মহত্যা করেছে ৬৬ জন । এদের মধ্যে ২৫ জন পুরুষ ও ৩৬ জন নারী ও ৫ জন শিশু। পারিবারিক দ্বন্দ্ব, প্রেমে ব্যর্থতা, অভিমান, রাগ ও যৌন হয়রানী, পরীক্ষায় খারাপ ফলের কারনে এসকল আতবমহত্যার ঘটনা ঘটেছে বলে পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে । ঢাকা বিভাগে আত্মহত্যার ঘটনা সবচেয়ে বেশী। এর মধ্যে ঢাকা, ফরিদপুর ও নারায়নগঞ্জে আত্মহত্যার হার বেশী।

শিশু হত্যা ঃ আগষ্ট মাসে ২৮ শিশুকে হত্যা করা হয় । এদের মধ্যে স্বয়ং পিতা মাতা কর্তৃক খুন হয় ৫ শিশু। । জামালপুরে ১৫ ও ১০ বছর বয়সী দুই বোনকে গলা কেটে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। ফরিদপুরে শিশু কন্যাকে কুপিয়ে হত্যা করে মাদকাসক্ত পিতা। ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগে শিশু হত্যার সংখ্যা বেশী।

ক্রস ফায়ার : আগষ্ট মাসে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ক্রস ফায়ারে নিহত হন ১২ জন। পুলিশের ক্রস ফায়ারে ৯ জন, র‌্যাবের ক্রস ফায়ারে ৩ জন । ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগে ক্রসফায়ারের ঘটনা বেশী।

পারিবারিক কলহঃ পারিবারিক কলহে আগষ্ট মাসে নিহত হন ২৭ জন, এদের মধ্যে পুরুষ ১২জন ,নারী ১৫ জন।। এদের মধ্যে স্বামীর হাতে নিহত হন ১১ জন নারী। আর স্ত্রীর হাতে নিহত হন ৩ জন স্বামী । পারিবারিক সদস্যদের মধ্যে দ্বন্ধ, রাগ, পরকীয়া সহ বিভিন্ন পারিবারিক কারনে এই সব মৃত্যু সংগঠিত হয় বলে জানা গেছে। নারায়ণগঞ্জে শিরিন আক্তার নামে এক গৃহবধূকে শ্বসরোধ করে হত্যা করে স্বামী।

সামাজিক অসন্তোষ ঃ সামাজিক অসন্তোষের শিকার হয়ে এই মাসে নিহত হয়েছেন ৯ জন ! আহত হয়েছেন ৩৪৬ জন। সামাজিক সহিংসতায় আহত ও নিহতের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে । হবিগঞ্জের বাহুবলে ইমাম পরিবর্তন নিয়ে কথাকাটাকাটির জেড়ে সংঘর্ষে নিহত হয় ২ জন । আহত অন্তত ১০০ গ্রামবাসী।

খুন ঃ আগষ্ট মাসে দেশে সন্ত্রাসী কর্তৃক নিহত হন ৮৫ জন । আহত হয় ৫৪ জন। ঝিনাইদহে দিনে দুপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফিরোজ হোসেরকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা । পটুয়াখালীতে একই পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

অন্যান্য সহিংসতার ঘটনা- আগষ্ট মাসে মাদকের প্রভাবে বিভিন্ন ভাবে নিহতের সংখ্যা ৪ জন, আহত হয় ১ জন। পানিতে ডুবে, অসাবধানবশত, বিদ্যুৎপৃস্ট হয়ে, বজ্রপাতে, পাহাড় ধসে মৃত্যুবরন করেছে ৮৯ জন। গণপিটুনিতে নিহত হয় ৮ জন, আহত ৯ । সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১৫০ জন, আহত ১৯৯ জন। চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু হয় ৬ জনের। রাজনৈতিক সহিংসতায় আহত হয় ১২৬ জন যার অধিকাংশ ঘটনা সরকারী দলের আন্তকলহের জেরে। অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার হয়েছে ২০ টি। জঙ্গি ও সন্ত্রাসী দমন অভিযানে গনগ্রেফতার করা হয় ৯৯৭ জনকে।

(তথ্য সুত্রঃ আগষ্ট ২০১৭ মাসে দেশে প্রকাশিত বিভিন্ন দৈনিক পত্র-পত্রিকা এবং সংস্থার বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও পৌরসভা শাখার মাধ্যমে সংগৃহিত তথ্য। এর বাইরেও মানবাধিকার লংঘন জনিত কিছু ঘটনা থাকতে পারে যা আমাদের সীমাবদ্ধতার কারনে সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি)

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন