বগুড়া সংবাদ ডটকম (মহাস্থান প্রতিনিধি এস আই সুমন) : খুলনা উপজোর গাড়ীপাড়া গ্রাম থেকে অপহৃত ৫ম শ্রেনির ছাত্রী সুবর্ণা আক্তার লতুফা (১০) নামের এক কিশোরীকে অপহনের ৬ দিন পর মহাস্থানগড় জাদুঘর থেকে পুলিশ ও মহাস্থান স্থানীয় সাংবাদিকদে সহায়তায় উদ্ধার করা হয়েছে। অপহরনের সাথে জড়িত থাকায় ১ নারী চক্রসহ ২ জনকে আটক করা হয়েছে। আকটককৃতরা হলো আব্দুল মোমিন (২৮) ও রেখা বানু (২৪)। অপহৃত সুবর্নার পিতা মিনহাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, বাড়ির পাশে অপহরণকারীরা একটি ভাড়া বাসায় থাকতো। এক পর্যায়ে তারা সুবর্নাকে কৌশলে গত ২৪ আগস্ট দুপুরে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর তাদের মোবাইল নাম্বার থেকে অপহৃতদের পরিবারের কাছে মোটা অংকের টাকা মুক্তিপণ দাবী করেন। পরে সুবর্নার পরিবার খুলনা খান জাহান আলী থানা পুলিশকে অপহনের বিষয়টি জানালে এর সূত্র ধরে পুলিশ অপহরণকারীদের আটক করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। অপহরনকারীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পয়ে তারা বিভিন্ন জেলায় আত্মগোপন করে থাকে। পরে পুলিশ মোবাইল ট্রাকিং এর মাধ্যমে অপহরণকারীদের অবস্থান মহাস্থানে জানতে পেরে খুলনা খান জাহান আলী থানা একটি টিম ম্ঙ্গলবার রাতেই মহাস্থানের উদ্দেশ্যে রওনা দেন এবং বুধবার (৩০ আগস্ট) সকাল ১১টায় পুলিশ মহাস্থানে হযরত শাহ সুলতানের মাযার এলাকা থেকে তাদের আটক করে। পুলিশ আটকের পর তারা প্রথমে সুবর্নাকে অপহরনের কথা অস্বীকার কর। পরে খবর পেয়ে মহাস্থান স্থানীয় প্রেসক্লাবের সাইদুর রহমান সাজু, কোষাধ্যক্ষ আনিছুর রহমান মিটু, শমশের নুর খোকন, এস.আই সুমন, গোলাম রব্বানী শিপন, শাকিউল ইসলাম শাকিল ঘটনাস্থলে গিয়ে অপহরণকারীদের জিজ্ঞাসার একর পর্যায়ে তাদের দেওয়া তথ্যানুযায়ী পুলিশকে সহায়তা করে মহাস্থান জাদুঘর থেকে অপহৃতা ভিকটিম সুবর্নাকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পর শিশুটি তার বাবাকে দেখে বাবা বলে চিৎকার দিয়ে সজ্ঞা হারিয়ে ফেলে। খুলনা খান জাহান আী থানার এসআই আব্দুল রহিম সুবর্না লুতফা অপহরনের বিষয়টি মহাস্থান সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে তাদের উদ্ধারের কাজে সহায়তা করার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন