Breaking News

ধুনটে স্বামীর বিচার চান নির্যাতিত গৃহবধু

বগুড়া সংবাদ ডটকম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনটে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ থেকে রক্ষা পেতে অপপ্রচার শুরু করেছেন এক দলিল লেখক। অপপ্রচারের প্রতিবাদ ও অভিযুক্ত স্বামীর বিচারের দাবী জানিয়েছেন ছাবিনা ইয়াসমিন নামের এক গৃহবধু। শনিবার ধুনট মডেল প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি এ দাবী জানান। ওই গৃহবধু উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের সামছুল হকের মেয়ে।
সাংবাদিক সম্মেলনে ছাবিনা ইয়াসমিন জানান, ২০০১ সালের ৭ মে একই গ্রামের মেছের আলী আকন্দের ছেলে দলিল লেখক ফজলুল হক ডাবলু’র সাথে ছাবিনা ইয়াসমিনের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। পরবর্তিতে গোপনে অন্য একটি নারীকে বিয়ে করে ডাবলু। তাঁরপর থেকে ২য় স্ত্রীকে বাড়ীতে আনার জন্য সুযোগ খুজতে থাকে। এক পর্যায়ে প্রথম স্ত্রী ছাবিনা খাতুনের নিকট যৌতুক দাবী করে। কিন্তুর দাবী অনুযায়ী টাকা না দেওয়ায় তাঁর উপর শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন শুরু হয়। সর্বশেষ গত ১৭ এপ্রিল ফজলুল হক ডাবলু পিটিয়ে ছাবিনা খাতুনকে গুরুতর আহত করে। স্বজনরা আহত ছাবিনা খাতুনকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এদিকে ছাবিনা খাতুন হাসপাতালে থাকার সুযোগে ফজলুল হক ডাবুল তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাড়ীতে নিয়ে আসেন। হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হওয়ার পর গৃহবধু ছাবিনা খাতুন গত ২০ এপ্রিল বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল- ২ এ একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলা থেকে রক্ষা পেতে দলিল লেখক ফজলুল হক নির্যাতিত গৃহবধু’র বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার শুরু করে। যার অংশ হিসেবে গত ১২ জুলাই বগুড়া প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করা হয়। যা গত ১৩ জুলাই বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে গৃহবধু ছাবিনা খাতুন গণমাধ্যমে প্রকাশিত ফজলুল হক ডাবলু’র মিথ্যাচারের প্রতিবাদ করেন। এছাড়া তাকে নির্যাতনের ঘটনায় ফজলুল হক ডাবলু’র বিচার পেতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।