Breaking News

বগুড়ায় বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত

বগুড়া সংবাদ ডট কম : সারাদেশের ন্যায় বগুড়া জেলাতেও ১১ জুলাই ২০১৭ বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস যথাযথ মর্যাদায় উদযাপিত হয়। এ বছর বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় “Family Planning: Empowering People, Developing Nations’’ যার বাংলা ভাবান্তর ‘‘পরিবার পরিকল্পনা : জনগণের ক্ষমতায়ন, জাতির উন্নয়ন’’। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বগুড়া শহীদ টিটু মিলনায়তনে বগুড়া জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আয়োজনে জেলার সরকারি ও অসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সমনয়ে এক আলোচনা ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বগুড়া পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জেলা প্রশাসক জনাব মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী। সহকারী পরিচালক (সিসি) ডাঃ মোঃ জহুরুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ আতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলার সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শামসুল হক, বগুড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আব্দুল জলিল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, কেন্দ্রিয় সদস্য ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মোঃ মমতাজ উদ্দিন, টিএমএসএস এর উপ-পরিচালক (হাসপাতাল) ডাঃ মোঃ আফজাল হোসেন তরফদার। অনুষ্ঠানের শুরুতেই জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে উপ-পরিচালক মহোদয় দেশের সার্বিক উন্নয়ন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের ভূমিকার উপর একটি প্রেজেন্টেশন প্রদর্শন করেন। আলোচনা সভার পূর্বে এক শোভাযাত্রা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে শহীদ টিটু মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়। বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র এবং ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে বিশেষ সেবাদান কর্মসূচী পালন করা হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন-বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের এবছরের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল যথেষ্ট যৌক্তিক। পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সাফল্যের ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান প্রধান অতিথি। বিশেষ করে সঠিক সময়ে বিবাহ, বিবাহ উত্তর পরিবার পরিকল্পার উপর জোর দেন। তাছাড়া পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের তথ্য ও জন্ম নিয়ন্ত্রণ সামগ্রী প্রান্তিক জনগোষ্ঠির সঠিকভাবে পৌঁছানোর ব্যবস্থা গ্রহন করারও আহবান জানান তিনি। বাল্য বিবাহ রোধকল্পে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মিসহ সকলের বলিষ্ট ভূমিকা রাখার আহবান জানান, এমনকি বাল্যবিবাহ রোধ করতে প্রয়োজনে তার সাথে ফোনে যোগাযোগ করারও আহবান জানান। সভায় প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব সেবা এবং প্রসব পরবর্তী পরিবার পরিকল্পনা সেবার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করা হয়। অতিথিবৃন্দ জাতীয় পর্যায়ের তুলনায় অনেক ক্ষেত্রে বগুড়া জেলার অগ্রগতির প্রশংসা করেন। পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সেবাকেন্দ্র সমূহকে শিশু-কিশোর বান্ধব, সেবা প্রাথীদের সেবা কেন্দ্র বিন্দু হিসেবে যাতে গড়ে ওঠে, সেদিকে নজর দেয়ার আহবান জানান। সভায় পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য জেলার এবং বগুড়া সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ কর্মী, শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান, শ্রেষ্ঠ উপজেলা পরিষদ, শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ ও শ্রেষ্ঠ অসরকারী সংস্থাকে সম্মাননা পত্র (প্রশংসা পত্র) ও ক্রেস্ট প্রধান অতিথির মাধ্যমে বিতরণ করা হয়।