Breaking News

সোনাতলায় বন্যায় ২,৫০০ পরিবারের মানুষ পানিবন্দী, চাল বরাদ্দ ২০ মে.টন

বগুড়া সংবাদ ডট কম (সোনাতলা সংবাদদাতা মোশাররফ হোসেন) : রোববার (৯ জুলাই) সকাল ৬টা পর্যন্ত বগুড়ার সোনাতলায় যমুনা নদীতে বিপদ সীমার ২৫ সেন্টিারমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় এ পর্যন্ত ৫৩৫ হেক্টর জমির বিভিন্ন ফসল আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। এরমধ্যে পাট ৪১০ হেক্টর,আউশ ১১৫ হেক্টর, শাকসব্জি ৫ হেক্টর ও বীজতলা ৫ হেক্টর। জানালেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালাহ উদ্দীন সরদার। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান জানান, তেকানী চুকাই নগর ইউনিয়নে ১,২৩৪ পরিবার, পাকুল্যা ইউনিয়নে ১,১৫৭ পরিবার ও মধুপুর ইউনিয়নের ৮০ পরিবারের মানুষ পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। বন্যাদুর্গতদের জন্য জেলা প্রশাসক ২০ মেঃ টন জিআর’র চাল বরাদ্দ দিয়েছেন। তা এখনও বিতরণ করা হয়নি। বিদ্যালয়ে ও রাস্তায় পানি ওঠায় তেকানী চুকাই নগর ও পাকুল্যা ইউনিয়নের ১২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ রাখা হয়েছে বলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার জিল্লুর রহমান জানান। তেকানী চুকাই নগর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর ও কাচারী হাটে পানি উঠেছে। পানি ওঠার কারণে পাশেই ওয়াপদা বাঁধের ওপর হাট বসে। পানিবন্দী পরিবারের গৃহকর্তারা পরিবার পরিজন ও গবাদি পশু নিয়ে আতঙ্কে ও কষ্টে জীবন যাপন করছে। শনিবার দুপুরের দিকে বগুড়া জেলা প্রশাসক মোঃ নূরে আলম সিদ্দিক নৌকা যোগে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির,ভাইস চেয়ারম্যান এনামুল হক মন্ডল,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রঞ্জনা খাঁন,উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা, পৌর মেয়র আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম আকন্দ নান্নু,থানার অফিসার ইনচার্জ শরিফুল ইসলাম, তেকানী ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল হক, পাকুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান জুলফিকার রহমান শান্ত,দিগদাইড় ইউপি চেয়ারম্যান আলী তৈয়ব শামীম ও মধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান অসীম কুমার জৈন নতুন,উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শাহিদুল বারী খাঁন রব্বানী,পৌর কাউন্সিলর তাহেরুল ইসলাম ও হারুন-অর-রশিদ প্রমুখ পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন ।