Breaking News

যমুনার পানি বিপদসীমার ১৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত ।। ধুনটে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত: পানিবন্দি শতাধিক পরিবার

বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট প্রতিনিধি ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনটে প্রবল বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আকষ্যিক পানি বৃদ্ধিতে যমুনার তীরবর্তী ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ আবাদী জমি ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে পানি বন্দি হয়ে পড়েছে শতাধিক পরিবার।
জানাগেছে, গত কয়েকদিনের প্রবল বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলার ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নের শিমুলবাড়ী, শহড়াবাড়ী, কৈয়াগাড়ী, রাঁধানগর ও বৈশাখী গ্রামে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। এতে ওই সব গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি পরিবারগুলো নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ইতিমধ্যেই কিছু পরিবার বাঁধের ওপর ছাপড়া ঘর তুলছে। এছাড়া বন্যার পানিতে শিমুলবাড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়, কৈয়াগাড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়, শহড়াবাড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও রাঁধানগর প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গন প্লাবিত হয়েছে। ওই সব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বন্যার পানি মাড়িয়ে বিদ্যালয়ে যাচ্ছে।
শিমুলবাড়ী গ্রামের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক আব্দুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করায় ছাত্র-ছাত্রীদের বিদ্যালয়ে যেতে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বন্যার পানি বেশিদিন স্থায়ী থাকলে ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়া বিঘ্নিত হবে।
ধুনট উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, কয়েকটি বিদ্যালয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে বলে সংবাদ পেয়েছি। সরেজমিনে বিদ্যালয়গুলো পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী হারুনর রশিদ জানান, শনিবার সন্ধা ৬টা পর্যন্ত যমুনা নদীর পানি বিপদ সীমার ১৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। পানি বৃদ্ধিতে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ কয়েকটি গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।