Breaking News

বগুড়ায় অবৈধভাবে ভূমিদস্যুদের বালু উত্তোলনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে তিনটি শ্যালো মেশিনে আগুন

বগুড়া সংবাদ ডট কম : বগুড়ার ঠেঙ্গামারায় অবৈধভাবে ভূমিদস্যুদের বালু উত্তোলনে ভ্রাম্যমান আদালতের বিশেষ অভিযানে তিনটি শ্যালো মেশিন আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। অাজ বৃহস্পতিবার সকালে ভ্রাম্যমান আদালতের এই অভিযানে ৩টি শ্যালো মেশিনে অাগুন ও অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
বগুড়া সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাবিবুল হাসান রুমি স্বয়ং ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। তার নেতৃত্বে সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের নওদাপাড়ার বালা পাড়ায় টিএমএসএস এর নির্মাণাধীন বিনোদন পার্কের পিছনে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার সময় ৪ ভূমিদস্যু বালু উত্তোলনকারীকে আটক করে পুলিশ। তাৎক্ষণিক বালু উত্তোলনের তিনটি শ্যালো মেশিন ও একটি বালু বোঝাই ট্রাক জব্দ করে আটক করেন। অাটককৃতরা হলেন, বগুড়া সদরের চাঁদপুর সোনার পাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে ওয়াহাব (২৩) ও ধলমহনী গ্রামের মজিবর আলীর ছেলে সাহেদ আলী (২৮), শিবগঞ্জের রায়নগর ইউপির ঘাগুরদুয়ার গ্রামের মোতাহার হোসেনের ছেলে সুমন মিয়া (২২) ও একই ইউপির অনন্তবালা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে রানা (২৭)। আটককৃতদের পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমান করে অাদালত, অনাদায়ে ৭দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাবিবুল হাসান রুমি। পরে আটককৃতদের জরিমানা পরিশোধে সেরেনেন হোটেল মম ইন এর ব্যবস্থাপক আব্দুল হান্নান।
ভূমি কমিশনার হাবিবুল হাসান রুমি জানান, সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ভাবে করতোয়া নদী ও এর আশপাশে বালু উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী কুচক্রী মহল। বেশ কিছুদিন যাবৎ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। এবং বিভিন্ন স্থানে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করছেন এবং জরিমানা ও কারাদন্ড প্রদানও করা হচ্ছে। আগামীতেও এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।