Breaking News

বগুড়ার শাজাহানপুরে গরম পানি দিয়ে এক গৃহবধূর শরীর ঝলসে দিয়েছে পাষন্ড স্বামী ও শ্বাশুড়ী ॥ আটক ২

z-pic-05-12-2016

বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর, বগুড়া জিয়াউর রহমান) : যৌতুকের দাবিতে বগুড়ার শাজাহানপুরে গরম পানি দিয়ে রিতা (২৫) নামের এক গৃহবধূর শরীর ঝলসে দিয়েছে পাষন্ড স্বামী ও শ্বাশুড়ী। এতেও ক্ষ্যান্ত হয়নি, গুরুতর আহত ওই গৃহবধূ যন্ত্রনায় ছটফট করলেও উপযুক্ত চিকিৎসা না করে অবহেলায় বাড়িতে ফেলে রাখার অভিযোগও উঠেছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ সোমবার বিকেল ৩টার দিকে গৃহবধূ রিতাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এঘটনায় রিতার বাবা মুনছের আলী বাদী হয়ে শাজাহানপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিতার স্বামী রনি এবং শ্বাশুড়ী মমতা বেগমকে আটক করেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, ৬ বছর আগে নাটোর জেলার গুরুদাসপুর উপজেলার জুমাইনগর গ্রামের মুনছের আলীর কন্যা রিতা (২৫) এর সাথে শাজাহানপুরের লতিফপুর মধ্যপাড়ার আব্দুল মালেকের পুত্র রনি (৩০)’র বিয়ে হয়। সংসার জীবনে তাদের রিহান নামের ৩ বছরের একটি শিশুপুত্র রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই বিভিন্ন সময়ে রিতার কাছে যৌতুক দাবি করছিল রনি ও তার পরিবারের লোকজন। এ জন্য রিতাকে মাঝে মধ্যেই শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করতো। এক পর্যায়ে গত শনিবার রাত ৮টার দিকে রিতার সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে রনি। এ সময় তাকে মারপিট করে এবং শরীরে গরম পানি ঢেলে দিয়ে ঝলসে দেয়। গুরুতর আহত রিতার উপযুক্ত চিকিৎসা না করে বাড়িতে ফেলে রাখে। খবর পেয়ে রিতার বাবা মুনছের আলী সোমবার শাজাহানপুর থানায় এসে ঘটনাটি জানালে পুলিশ তড়িৎ পদক্ষেপ নেয়। থানার সেকেন্ড অফিসার এস.আই কালাচাঁদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সোমবার বিকেল ৩টার দিকে লতিফপুর মধ্যপাড়া গিয়ে গৃহবধূ রিতাকে উদ্ধার করেন এবং রিতার স্বামী রনি ও শ্বাশুড়ী মমতা বেগম (৫০) কে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।
রিতার শ্বাশুড়ী মমতা বেগম জানিয়েছেন, শিশু রিহানকে লেখা শেখানোর জন্য স্বামীকে খাতা কিনে আনতে বলেছিল রিতা। খাতা কিনে না আনায় স্বামী-স্ত্রীতে ঝগড়া বাঁধে। এ সময় চুলায় ডিম সিদ্ধ দেয়া হয়েছিল। ঝগড়ার এক পর্যায়ে রনি ওই ডিম সিদ্ধের পাতিল ছুঁড়ে মারে। এতে রিতার শরীর ঝলসে যায়। এরপর সাধ্যমতো রিতার চিকিৎসা করা হচ্ছিল বলেও দাবি করেন মমতা বেগম।
শাজাহানপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ-আল মাছউদ চৌধুরী জানিয়েছেন, অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথেই গৃহবধূ রিতাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী রনি এবং শ্বাশুড়ী মমতা বেগমকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।