Breaking News

ধুনট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষকে আর্থিক দূর্ণীতির অভিযোগে অপসারন

Logo-2+++বগুড়া সংবাদ ডট কম (ধুনট, বগুড়া ইমরান হোসেন ইমন) : বগুড়ার ধুনট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবু মারজান মোহাম্মদ শাহজাহানকে আর্থিক দূর্ণীতির অভিযোগে কারন দর্শানোর নোটিশ দিয়ে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ করা হয়েছে প্রভাষক ফজিলাতুন্নেছাকে। সোমবার সন্ধায় কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।
ম্যানেজিং কমিটির কমিটির সদস্য প্রভাষক হাফিজুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, বিধি বহির্ভূতভাবে কলেজের অধ্যক্ষ নিজের একাউন্টে ১৯ লাখ টাকা রেখেছিলেন এবং কোন অনুমোদন ছাড়া কলেজের সহকারী হিসেব রক্ষকের কাছ থেকে টাকা নিয়েছেন এবং ইচ্ছেমত খরচ করেছেন। এটা নিয়ম বহিভূত। একারনে আর্থিক দূর্ণীতির বিষয়ে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে দূর্নীতির বিষয়টি প্রমানিত হওয়ায় অধ্যক্ষ আবু মারজান মোহাম্মদ শাহজাহানকে অপসারন করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে প্রভাষক ফজিলাতুননেছাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
কলেজের সহকারী হিসেব রক্ষক জাকারিয়া জানান, অধ্যক্ষ আমার কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়েছেন। তিনি টাকা চাইলে তো আমাকে দিতেই হবে। তবে তার টাকা নেওয়ার প্রমান আমার কাছে রয়েছে। অধ্যক্ষ স্থানীয় রাজনীতির জোড়ে কলেজ জাতীয়করনের বিষয়ে সমস্যার সৃষ্টি করছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষক কর্মচারীরা জানিয়েছেন, কারো ব্যক্তি রাজনীতির কারনে কলেজ জাতীয়করন থেকে বঞ্চিত হবে তা আমরা মেনে নেব না। কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাবিবর রহমান কলেজ জাতীয় করনের সকল ব্যবস্থা করে দিয়েছেন এবং কাজ করে যাচ্ছেন।
অধ্যক্ষ আবু মারজান মো: শাহজাহান বলেন, আমার কোন আর্থিক কোন দূর্নীতি নেই। সব বিধি মোতাবেক করেছি। তবে ষড়যন্ত্র করে আমাকে অপসারন করা হচ্ছে।
কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব হাবিবর রহমান এমপি বলেন, অধ্যক্ষের দূর্ণীতির বিষয়টি তদন্তে প্রমানিক হওয়ায় ম্যানেজিং কমিটি ও শিক্ষকদের সিদ্ধান্তে তাকে অপসারন করা হয়েছে।