বগুড়া সংবাদ ডট কম : বগুড়া ওয়াইএমসিএ পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এবং ওয়াইএমসিএ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট এর যৌথ আয়োজনে রবিবার সকালে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ক্যাম্পাসে ২৮তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বগুড়া ওয়াইএমসিএ পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ রবার্ট রবিন মারান্ডীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন। তিনি বলেন, ইয়াং মেনস খ্রীস্টিয়ান এসোসিয়েশন (ওয়াইএমসিএ) একটি আন্তর্জাতিক মানের সংগঠন। এ সংগঠন কর্তৃক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে যথেষ্ট নিয়মানুবর্তিতা বিরাজমান। নিয়মানুবর্তিতা ব্যতিত কোন জাতিই এগোতে পারে না। খেলাধুলা যুব সমাজকে নেশা ও সন্ত্রাস থেকে বিরত রাখে। দেশের জঙ্গীগোষ্ঠীকে নির্মুল করার ক্ষেত্রে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর ও সফলতা লাভ করেছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষাখাতে সবচেয়ে বেশী বরাদ্দ দিয়েছে। কারণ শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। মেরুদন্ড শক্ত না হলে মানুষ যেমন সবল হয় না ঠিক তেমনি শিক্ষা ব্যতিত কোন জাতির উন্নয়ন সম্ভব নয়। শিক্ষার হার বৃদ্ধির সাথে সাথে উন্নয়নের দিকে ধাবিত হচ্ছে এদেশ। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে এশিয়ার উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে লাল সবুজের বাংলাদেশ। বাঙ্গালি জাতি যুদ্ধ করে যেমন দেশ স্বাধীন করেছে ঠিক তেমনি দৃঢ় মনোবল দ্বারা ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গঠন করছে। এদেশের পরবর্তী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সার্বিক ইতিহাস জানাতে হবে। সঠিক ইতিহাস জানলেই প্রত্যেককের মাঝে দেশপ্রেম সৃষ্টি হবে। যে জাতির দেশপ্রেম যত বেশী সে জাতি তত উন্নত। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সোনার বাংলা বাস্তবায়নের জন্য সবচেয়ে বেশী ভুমিকা রাখবে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ন্যাশনাল কাউন্সিল অব ওয়াইএমসিএ’স সভাপতি মিঃ দীলিপ মারান্ডী, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বগুড়া সদর মোঃ গোলাম মাহবুব মোরশেদ, বগুড়া ওয়াইএমসিএ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট এর অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ভিভিয়ান রিওন মারান্ডী। প্রধান অতিথি জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন, মার্চপাস্ট পরিদর্শন ও পুরস্কার বিতরণ করেন। বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় স্কুলের শিক্ষার্থীরা নৃত্য পরিবেশন করে। বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় উপস্থাপনায় ছিলেন সহকারী শিক্ষিকা আবেদা আশরাফ ও গ্লোরী লুবনা চাম্বুগং ও সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উপাধ্যক্ষ কাজী নাজনীন জাহান।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন