বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়ার শাজাহানপুরে ৭ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর ঘটনা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকার দলীয় নেতাদের মধ্যস্থতায় আপোষ-মিমাংশা করা হয়েছে। ঝামেলা না বাড়াতে এই আপোষ-মিমাংশা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভিকটিমের পরিবার।
জানা গেছে, বুধবার দুপুরে উপজেলার আড়িয়া পালপাড়ার মৃত খিতিষ পালের পুত্র ২ সন্তানের জনক বিশ্বজিত (৪২) নিজ বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে প্রতিবেশী ৭ম শ্রেণীতে পড়–য়া এক স্কুলছাত্রীকে হাত ধরে টেনে ঘরে নিয়ে গিয়ে শ্লীলতাহানী ও ধর্ষনের চেষ্টা করে। এসময় ওই স্কুল ছাত্রী ভয়ে চিৎকার দিয়ে দৌড়ে বাড়িতে এসে তার মাকে জানালে মা গিয়ে বিশ্বজিতকে ঝাটা পেটা করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পরে তা ধামাচাপা দিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকার দলীয় নেতাদের মধ্যস্থতায় একাধিকবার শালিশ বৈঠকের পর আপোষ-মিমাংশা করা হয়।
ভিকটিমের স্বজনেরা জানান, ঝামেলা না বাড়াতে লিখিত ভাবে আপোষ-মিমাংশা করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের (ভিকটিমের পরিবার) কারনে মধ্যস্থতাকারীদেরকে টাকা দিতে হয়েছে বলে ক্ষিপ্ত হয়ে পেশি শক্তির জোরে বাড়ির পাশে ড্রেন নিয়ে অত্যাচার শুরু করে। পরে শুক্রবার রাতে শালিক বৈঠকে বসে পুনরায় আপোষ-মিমাংশা করা হয়েছে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মুরাদ জানান, টাকা পয়সার কোন লেনদেন হয়নি। তাছাড়া জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমি শুধু উপস্থিত ছিলাম। যা করেছে তারায় করেছে।
থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তার জানা নাই। এবিষয়ে কেউ অভিযোগ করেননি।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন