বগুড়া সংবাদ ডট কম (শিবগঞ্জ প্রতিনিধি রশিদুর রহমান রানা) : বগুড়ার শিবগঞ্জ ময়দানহাট্টা ই্উনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ শহিদুল ইসলামের মটর সাইকেলের গতিরোধ করে এলোপাথারীভাবে মারপিট রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার, হাসপাতালে ভর্তি।
জানাযায়, শিবগঞ্জ উপজেলার ময়দানহাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা মহাবালা গ্রামের শহিদুল ইসলাম কালাই পানিতলা হাট থেকে মটর সাইকেল যোগে দাড়িদহ বন্দরে আসার সময় সন্ত্রাসী রিপন তার মটর সাইকেলে ৩জন যুবক নিয়ে শহিদুল ইসলামের পথরোধ করে মারপিটের চেষ্ঠা করে। কিন্তু শহিদুল তার মটর সাইকেলটি নিয়ে দ্রুত গতিতে সন্ত্রাসীদের ভয়ে সোজা মটর সাইকেল নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ঢুকে পড়ে। পরে শহিদুল মটর সাইকেল ইউনিয়ন পরিষদের রেখে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে পাকা রাস্তায় আসলে ঔৎ পেতে থাকা রিপন ৮/৯ জন যুবক নিয়ে অতর্কিত ভাবে শহিদুলের উপর এলোপাথারীভাবে মারপিট শুরু করতে থাকে। এর একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা শহিদুলের মৃত্যু হয়েছে মনে করে তারা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে বাজারের কিছু পথ চলার সচেতন মহল শহিদুলকে রক্তাক্ত অবস্থায় শহিদুলকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। এব্যাপারে উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম রূপম এর সাথে যোগাযোগ করলে, তিনি অত্যন্ত দুঃখ করে বলেন, শহিদুল একজন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা, সন্ত্রাসীরা এভাবেই মানুষকে মারধর করে আমি স্বচোখে কখনো দেখিনি এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। বিষয়টি নিয়ে শহিদুলের বড় ভাই হাফিজার রহমান এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বন্দরে না হয়ে যদি আমার ভাইকে অন্য কোন স্থানে একা পেতো তাহলে হয়তো ওরা আমার ভাইকে মেরেই ফেলে দিতো। অল্পের জন্য আমার ভাইটা প্রাণে বেঁচে গেলেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন