বগুড়া সংবাদ ডট কম:  বগুড়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী বলেছেন, স্বাধীনতার পর থেকেই দেশের গণমাধ্যম বিকশিত হতে শুরু করে। আজ সেটি পূর্ণাঙ্গ পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে। তবে এই শিল্পটি এখনও প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পায়নি। কারণ, এক সময় গণমাধ্যমের নিয়ন্ত্রণ ছিলো এরসঙ্গে যাঁরা সরাসরি যুক্ত তাদের হাতে; কিন্তু এখন শুধু দেশেই নয়, বিশ^ব্যাপী গণমাধ্যম চলে গেছে কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণে। ফলে তারা মানুষ ও দেশের চেয়ে নিজেদের স্বার্থের বিষয়টি অধিক ভাবছে। একারণে অনেক সময়ই গণমাধ্যম কর্মিদের চাকরির নিশ্চয়তা থাকছে না। সরকার স্বাধীন গণমাধ্যমের বিকাশ ও প্রাতিষ্ঠানিক রূপদানে সচেষ্ট রয়েছে। সাংবাদিকদের এজন্য সরকারি ভাবে আর্থিক সহায়তার পাশাপাশি তাদের বেতন-ভাতা নিশ্চিত করতে কাজ শুরু হয়েছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে স্বল্প সময়ের মধ্যেই গণমাধ্যম তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছবে।
মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিইউজে) আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর, যুগ্ম মহাসচিব জি এম সজল, নির্বাহী সদস্য ঠা-া আজাদ ও আরিফ রেহমান। বিইউজে সভাপতি আমজাদ হোসেন মিণ্টুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি এএইচএম আখতারুজ্জামান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন, সিনিয়র সাংবাদিক মিলন রহমান, মোহন আখন্দ, বিইউজে’র কোষাধ্যক্ষ সবুর আল মামুন, নির্বাহী সদস্য জিয়া শাহীন, সাজেদুর রহমান সিজু প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে সাংবাদিক নেতারা বলেন, বর্তমান সরকারের সময় গণমাধ্যম যেমন স্বাধীনভাবে কাজ করছে, তেমনি সংবাদ কর্মিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর নিজ উদ্যোগেই সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠিত হয়েছে। এই ট্রাস্টে তিনি নিজেই শুধু অর্থ জমা দেননি, বরং সেটিকে শক্তিশালী করতে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে নিজে অর্থ গ্রহণ করে তহবিল বৃদ্ধি করেছেন। গণমাধ্যম বান্ধব প্রধানমন্ত্রী বলেই তিনি স্বউদ্যোগে দেশের সাংবাদিকদের জন্য এই কাজ করেছেন।
অনুষ্ঠানে বগুড়ায় কর্মরত বিইউজে সদস্যদের মধ্যে মুরশিদ আলম, আব্দুস সালাম বাবু, সাজ্জাদ হোসেন পল্লব, ফরহাদুজ্জামান শাহী, সৈয়দ মোমিন বিন আসাদ জিলু, রফিকুল ইসলাম বাবু বসুধা, গৌরব চন্দ্র দাস, আব্দুর রহমান টুলু ও সুব্রত কুমার রায় সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের চেক গ্রহণ করেন। তাঁদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন