বগুড়া সংবাদ ডট কম (শেরপুর সংবাদদাতা কামাল আহমেদ)বগুড়ার শেরপুরে ‘সেরা’ জাতের বেগুন কৃষকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। অন্যন্য জাতের বেগুনের চেয়ে এই বেগুনের ফলন অনেক বেশি হওয়ায় লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের বাংড়া গ্রামের কৃষক আব্দুর রাজ্জাক গেটকো এগ্রোভিশন লিমিটেডের সেরা জাতের বেগুন চাষ করে লাভবান হয়েছেন। একই জাতের বেগুন চাষ করে সফল হয়েছেন কুসুম্বীর মোফাজ্জল। বেগুন চাষী আব্দুর রাজ্জাক জানান, তিনি ১৮ শতাংশ জমিতে প্রথমে মরিচের আবাদ করেছিলেন। কিন্তু মরিচ গাছ নস্ট হওয়ায় ঐ জমিতে সেরা জাতের বেগুনের চাষ করেন। এ পর্যন্ত ঐ জমি থেকে তিনি ৩ বারে মোট ৩০ মণ বেগুন বিক্রি করে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা আয় করেছেন। গাছের অবস্থা ভাল থাকলে ঐ জমি থেকে আরো ১৫০ মণ বেগুন বিক্রির আশা করছেন। গত ১৮ ডিসেম্বর সোমবার বিকাল ৫ টায় (সম্প্রতি) শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ই্উনিয়নের বাংড়া গ্রামে গেটকো এগ্রো ভিশন লিমিটেড আয়োজিত হাইব্রিড বেগুন ‘সেরা’ জাতের সবজি প্রদর্শনী ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে তিনি জানান, প্রতিটি বেগুনের ওজন প্রাং ৩৫০ থেকে ৪০০ গ্রাম। বেগুনে বীজের পরিমান কম থাকায় খেতে সুস্বাদু। রং আকর্ষণীয় ও উজ্জ্বল থাকায় বাজারে বেশ চাহিদা থাকে। অন্যান্য জাতের চেয়ে ফলন বেশী এবং রোগ বালাইয়ের আক্রমণ কম থাকায় কৃষকরা এ জাতের বেগুন চাষ করে অধিক লাভবান হওয়া সম্ভব।
স্থানীয় কৃষক মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শেরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ খাজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন সেরা জাতের বেগুনের উদ্ভাবক ও গেটকো এগ্রোভিশন লিমিটেডের প্রিন্সিপাল প্লান্ট ব্রিডার ও কৃষিবিজ্ঞানী এ জেড এম খোরশেদ আলম চৌধুরী বাবলা। বক্তব্য রাখেন, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমান, বীজ ডিলার পলাশ দত্ত, নার্সারী মালিক মোঃ হারেজ উদ্দিন, গেটকোর ট্রেনিং এন্ড প্রডাক্ট ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার মোঃ জহুরুল ইসলাম, এরিয়া ম্যানেজার মোঃ শামীম আল মামুন, মার্কেটিং অফিসার মোঃ আল আমিন,মোঃ জাহিদুল হক, ও বেগুন চাষী মোঃ আব্দুর রাজ্জাক।
শেরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ খাজানুর রহমান জানান, সরকারের পাশাপাশি বে সরকারি সংস্থা গুলো দেশের কৃষি ক্ষেত্রে গবেষণা করে নতুন নতুন উন্নত ও উচ্চ ফলনশীল জাতের ফসল উৎপাদন করছেন। হাইব্রিড ‘সেরা’ জাতের বেগুন তার মধ্যে একটি। এই জাতের বেগুন চাষ করে শেরপুর উপজেলার কৃষকরা লাভবান হচ্ছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন