বগুড়া সংবাদ ডট কম (মহাস্থান প্রতিনিধি এস আই সুমন) :বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মহাস্থানের পাথরপট্রি নামক স্থানে প্রতœতত্ত্ব বিভাগের পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে মমতাজ বেগম (৩০) নামের ৩ সন্তানের জননীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত গৃহবধূ পাথরপট্রি এলাকার আলতাব আলীর পুত্র কামালের স্ত্রী বলে জানা গেছে। কামাল কিছু দিনপূর্বে মাদকের একটি মামলায় জেল হাজতে রয়েছেন। তাদের সংসারে জাকিয়া আক্তার (১৪) ও জাকিরুল ইসলাম (৯) এবং জাহিদ হাসান (৫) নামেরএকটি ফুটফুটে শিশু সন্তান রয়েছে।
নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় নিহত গৃহবধূ মমতাজ বেগমকে মহাস্থান ঈদগাঁহ মাঠ থেকে অজ্ঞাত এক যুবক ডেকে নিয়ে পাথরপট্রির পরিত্যক্ত বাড়ির দিকে যায়। এরপর দীর্ঘক্ষণ সে না ফেরায় পরিবারের সদস্যরা তাকে সম্ভাব্য স্থানে খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে পাথরপট্রির বাটগাছের নিচে পরিত্যক্ত বাড়ির একটি কক্ষের মেঝেতে তার রক্তাক্ত জবাইকৃত লাশ দেখে স্থানীয় প্রতিনিধিদের খবর দেন। পরে তারা শিবগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের একটি ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরহেদ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এবিষয়ে শিবগঞ্জ থানা ইন্সপেক্টর (অপারেশন) জাহিদ হাসান এর সাথে কথা বললে তিনি সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের খবর পেয়ে রাত ১২টায় লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। তবে কি কারনে কে বা কারা তাকে হত্যা করেছেন এবিষয়ে তিনি সুস্পষ্ট কিছু বলতে পারেননি। এদিকে বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থানগড়ের পাথরপট্রি এলাকার আরকিওলজির পরিত্যক্ত বাড়ি গুলো এখন মাদক ও অনৈতিক কাজের আকড়ায় পরিনত হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। তাদের তথ্যমতে মহাস্থানগড়ের বেশকিছু এলাকার জায়গা, জমি ও নির্মাণাধীন ঘর, বাড়ি, আরকিওলজি ডিপার্টমেন্ট অর্থাৎ প্রতœতাত্ত্বিক বিভাগ এ্যাকোয়ার করে। সরকারি ভাবে তাদের বাড়ি, জায়গা, গাছপালাসহ অবকাঠামো ন্যায্য মূল্য দিয়ে নিয়ে সে গুলো পরিত্যক্ত রাখা হয়েছে। আর এই পরিত্যক্ত বাড়িতে এখন কেউ না থাকায় ভিতরে ঝোপঝাড়ে পরিনত হয়েছে। এসব এলাকায় ভ্রাম্যমাণ মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীরা নিরাপদ স্থান হিসাবে ব্যবহার করছে। এলাকাবাসী জানান, এবাড়ি গুলোতে শুধু মাদক সেবন বা বিক্রিই হয় না। স্থানীয় বেশকিছু অসাধু ব্যক্তি ও মাদক সেবনকারীরা টাকার বিনিময়ে মাঝে মাঝে বহিরাগত প্রেমিক জুটি ও দেহ ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে অনৈতিক কর্মকান্ড। যার কারনে আজকের এই হত্যাকান্ড সংঘঠিত হয়েছে। তাই সচেতন এলাকাবাসী ঐতিহাসিক মহাস্থানগড় হযরত শাহ সুলতানের মাযার এর পবিত্রতা রক্ষার্থে প্রতœতত্ত্ব বিভাগ ও প্রসাশনের প্রতি অনুরোধ জ্ঞাপন করে এসব পরিত্যক্ত বাড়ি ভেঙ্গে উচ্ছেদ করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। নইলে এর চেয়েও ভয়ানক অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটতে পারে বলে তাদের ধারণা।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন