বগুড়া সংবাদ ডট কম (এইচ আলিম, বগুড়া) : তিনটি নাটক মঞ্চায়নের মধ্যে দিয়ে বগুড়া নান্দনিক নাট্যদলের আয়োজনে তিনদিন ব্যাপিপথ নাট্য উৎসব সমাপ্তি হয়েছে। শুক্রবার বিকালে উৎসবের শেষ দিনে সংশপ্তক থিয়েটার নাটক দে ছুট মঞ্চায়ন করে। নাটকটির রচনা ও নির্দেশনা প্রদান করেন বাকার বকুল। সংগঠনের ২৯তম প্রযোজনা ছিল দে ছুট। এরপর বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ শিক্ষার্থীদের নাট্য সংগঠন কলেজ থিয়েটার মঞ্চায়ন করে নাটক মহাদেব। ওসমান গনি রচিত ও শোভন চন্দ্র সরকার নির্দেশিত নাটকটিতে সমকালিন ধর্মীয় নির্যাতনকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন চরিত্র। নাটকটির নাম ভূমিকায় বা মুল চরিত্রে অভিনয় করেন সিজুল ইসলাম। সব শেষে নাটক নবাব সিরাজউদ্দৌলা মঞ্চস্থ হয়।
শুক্রবার সন্ধ্যায় বগুড়া শহরের সাতমাথায় সমাপনী দিনের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ খান রনি, বিআইআইটি অধ্যক্ষ প্রকৌশলী সাহাবুদ্দীন সৈকত, বগুড়া থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হাসান ময়না, সাদাত শিক্ষা পরিবারের নির্বাহী পরিচালক নুরুজ্জামান জুয়েল, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দিকী ও এবিএম জিয়াউল হক বাবলা। সভাপতিত্ব করেন নান্দনিক নাট্যদলের সভাপতি তাপস কুমার নিয়োগী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান চৌধুরী, আহম্মেদুর রহমান ডালিম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কবি ও সাংবাদিক এইচ আলিম।
বগুড়া নান্দনিক নাট্যদল ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই সংগঠনটি এর আগে নাটক নবাব সিরাজউদ্দৌলা বেশ কয়েকবার মঞ্চায়ন করেছে। এবার ১২ বার মঞ্চায়ন হবে বগুড়া শহরের সাতমাথায়। সংগঠনটির মোট প্রযোজনা নাটক রয়েছে ৪০টি এবং এই ৪০ টি নাটক ১ হাজার ৪২ বার মঞ্চায়ন হয়েছে। নাটকটি শচীন সেন গুপ্ত রচিত ও নান্দনিক নাট্য দলের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান চৌধুরী নির্দেশনা দিয়েছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন