বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বিয়ে অনুষ্ঠানের জন্য আত্নীয় স্বজনের সমাবেশ, ভুড়ি ভোজের যাবতীয় আয়োজনসহ সকল প্রস্তুতি গ্রহন করার পর অবশেষে বগুড়ার আদমদীঘি মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারুক হোসেনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল দশম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রী মনিষা বেগম(১৬)। সোমবার দুপুরে আদমদীঘি উপজেলার নসরতপুর গ্রামে এ বিয়ে বন্ধের ঘটনা ঘটে।
আদমদীঘি মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারুক হোসেন জানায়, আদমদীঘি উপজেলার নসরতপুর গ্রামের মনজুর মেয়ে নসরতপুর বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী মনিষা বেগম (১৬) কে গত সোমবার বাল্য বিয়ে দেওয়ার জন্য আত্নীয় স্বজনের সমাবেশ, ভুড়ি ভোজের যাবতীয় আয়োজন সম্পন্ন করা হয়। মনিষার বাবার বাড়িতে এখন শুধু বর ও তাদের লোকজন আসার অপেক্ষায়। ইতিমধ্যে বাল্য বিয়ের খবর আসে উপজেলা নিবার্হী অফিসার রেজাউল করিমের নিকট। বেলা ১টায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারুক হোসেন, পুলিশসহ তৎক্ষনিক বাল্য বিয়ে অনুষ্ঠানের হাজির হন। মেয়ের বিয়ে বয়স ১৮ বছর পূর্ন না হওয়া পযর্ন্ত তাকে বিয়ে দেয়া যাবে না মর্মে পরিবারের নিকট থেকে একটি লিখিত মুচলেকা নিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেয়।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন