বগুড়া সংবাদ ডটকম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) :  আগামী সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে কাহালু সেফগার্ড কেজি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, উপজেলা নাগরিক কমিটির আহবায়ক, কাহালু মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি, কাহালু ইউসিসিএলিঃ এর চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও কাহালু-নন্দীগ্রাম এলাকার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কামাল উদ্দিন কবিরাজ এর ব্যাপক গণ-সংযোগ। প্রতিদিন তিনি উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে বিভিন্ন পেশাজীবি লোকজনের সাথে কুশল বিনিময় করছেন। ইতিপূর্বে তিনি “হৃদয়ে কাহালু” এর আয়োজনে কাহালু পৌর এলাকার ঐতিহাসিক রেলওয়ে বটতলা, মালঞ্চা ইউনিয়নের মালঞ্চা বাজার, জামগ্রাম ইউনিয়নের জামগ্রাম বাজার, কালাই ইউনিয়নের পিলকুঞ্জ বাজার ও দূর্গাপুর ইউনিয়নের দূর্গাপুর বাজারে নির্বাচনী জনসভা করেছেন। প্রতিটি নির্বাচনী জনসভায় বিভিন্ন পেশাজীবি লোকজনের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। এছাড়াও তিনি উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও শিক্ষক/শিক্ষিকা, উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির আওতায় অন্যান্য সমিতির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সদস্যদের সাথে প্রতিনিয়ত কুশল বিনিময় করছেন। নির্বাচনী জনসভা, গণ-সংযোগ ও কুশল বিনিময় কালে কামাল উদ্দিন কবিরাজ আওয়ামীলীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড সর্ম্পকে জনগণকে অবগত করেন এবং আগামী সংসদ নির্বাচনে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করার আহবান জানান। প্রতিটি নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্যে তিনি কাহালু-নন্দীগ্রাম এলাকার আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে জোর দাবী করেন। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে তিনি যুক্তি তুলে ধরে বলেন, ১৯৭৫ পরবর্তী আওয়ামীলীগের দুঃসময়ে কাহালু এই জনপদে জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলার মতো কেউ ছিলনা। তখন আমি ছাত্রলীগে যোগদান করে জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু শে¬¬াগানের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত ব্যক্তিদেরকে ঐক্যবদ্ধ করতে সক্ষম হই। দীর্ঘ ১০ বছরে একটানা ছাত্রলীগের দায়িত্বে থেকে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ সহযোগী অঙ্গ সংগঠনকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। আওয়ামীলীগ করাকালীন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতি পদ থেকে স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন, খালেদা জিয়া বিরোধী আন্দোলন এবং জামায়াত-বিএনপি তথা ৪ দলীয় জোটের বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করেছি এবং নেতৃত্ব প্রদান করেছি। জামায়াত-বিএনপি তথা ৪ দলীয় জোটের বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে আমাকে চরম মূল্যে দিতে হয়েছে। ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবরে ৪ দলীয় জোটের সমর্থকেরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অংশ হিসেবে আমার বাসায় পেট্রোল ছুঁড়ে দিয়ে অগ্নি সংযোগ করে ভুস্মীভূত করেছিল এবং আমাকে ৭টি মিথ্যা মামলার আসামী করা হয়েছিল। কাহালু উপজেলার আওয়ামীলীগের কোন নেতাই এমন ক্ষতির সম্মুখিন হয়নি। গণতন্ত্রের মানষকন্যা, দলীয় সভানেত্রী, দেশরতœ, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে বলে আমি গভীর ভাবে বিশ্বাস করি।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন