বগুড়া সংবাদ ডট কম (মহাস্থান প্রতিনিধি এস আই সুমন) : বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার রায়নগর ইউনিয়নের টেপাগাড়ী গ্রামের এক গৃহবধূকে যৌতুকের টাকার দাবীতে স্বামী ও শ্বাশুড়ী কর্তৃক নির্যাতন, হাসপাতালে ভর্তি।
জানা গেছে, শিবগঞ্জের টেপাগাড়ী গ্রামের দুলাল প্রাং-এর মেয়ে দোলোনা বেগম (১৯) কে গাবতলী উপজেলার কাগইল ইউনিয়নের আমলী চুকাই গ্রামের ফুল মিয়ার পুত্র রুহুল আমিনের সাথে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দেন মোহর ধার্যে প্রায় ৯/১০ পূর্বে বিয়ে হয়। এসময় ছেলে ও তার পরিবার দেন মোহার দার্যের সম পরিমাণ যৌতকের দাবী করলে মেয়ের বাবা নগদ ৩৫ হাজার টাকা দেয়ার পরেও তারা তৃপ্ত না হয়ে আরো ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা যৌতুক দাবী করে। তাদের দাবী অনুযায়ী বাঁকি টাকা পরিশোধ করতে না পারায় মাঝে মধ্যেই রুহুল আমিন ও তার মা দোলেনা বেগমকে নির্যাতন করতে থাকে। এক পর্যায়ে নির্যাতন সইতে না পেরে দোলেনা বেগম বাপের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এ ঘটনার জেরে ২১ নভেম্বর ২০১৭ইং তারিখে মেয়ের বাবার বাড়িতে গিয়ে আর নির্যাতন না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিষয়টি আপোষ করে দোলেনাকে রুহুল আমিন তার বাড়ীতে নিয়ে যায়। নিয়ের যাওয়ার কয়েক দিন না যেতেই আবারও দোলেনাকে যৌতুকের দাবীতে গত ২৫ নভেম্বর ২০১৭ইং তারিখে অমানষিক নির্যাতন করে গুরুতর আহত করে বাড়ির বাহিরে ফেলে রাখে। এ সংবাদ দোলেনার পরিবার জানতে পেরে ঐ দিন রাত অনুমান সাড়ে ১২টায় তাকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। দোলেনার পরিবার জানায় রুহুল আমি, তার মা আলেয়া বেগম ও বাবা ফুল মিয়া ও কছিমুদ্দিন সহ অজ্ঞান ২/৩ জন এ ঘটনার সাথে জড়িত। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত সন্ধ্যায় শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন