bograsangbad_Logoবগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : বগুড়া শাজাহানপুরের বি-ব্লক ক্যান্টনমেন্ট স্টেশন ক্যান্টিন কমপ্লেক্র মার্কেটের সেলফ্ পয়েন্ট নামের একটি ইলেক্ট্রনিকস শো-রুমে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনায় মোহাম্মাদ আলী (৫৫) নামের এক নৈশপ্রহরীকে আটক করে পুলিশ। শুক্রবার রাতে আটকের পর জিঙ্গাসাবাদ শেষে শনিবার দুপুরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
সেলফ্ পয়েন্ট শো-রুমের স্বত্তাধিকারী দেলওয়ার হোসেন জানান, ১৪ নভেম্বর ভোরে তার শো-রুমের তালা খুলে ভিতরে প্রবেশ করে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা মূল্যের বিভিন্ন ব্রান্ডের মোবাইল সেট চুরি হয়ে যায়। এঘটনায় থানায় অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। এমতাবস্থায় ১৫ নভেম্বর বিকেলে বি-ব্লক এলাকার ফেরদৌস নামের একজন কিটনাশক ঔষধ কোম্পানীর ড্রাইভার নৈশপ্রহরী মোহাম্মাদ আলীকে নওগাঁর নজিপুর গোল চত্তরের পাশে একটি মার্কেটে প্যাকেটে করে মোবাইল সেট বিক্রি করতে দেখে। ফেরদৌস শুক্রবার ছুটিতে এসে বি-ব্লক মার্কেটে চুরির খবর জানার পর তার সন্দেহ হয়। পরে বিষয়টি জানতে পেরে ফেরদৌসকে সাথে নিয়ে শুক্রবার রাতে থানায় গিয়ে পুলিশকে জানানো হয়। পুলিশ ফেরদৌসের নিকট থেকে জানার পর ওই রাতেই নৈশপ্রহরী মোহাম্মাাদ আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে এসে স্বীকারোক্তি আদায় করতে না পেরে পরের দিন শনিবার দুপুরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। নৈশপ্রহরী মোহাম্মাদ আলী এই চুরির সাথে জড়িত এবং পুলিশ স্বীকারোক্তি আদায় করতে ব্যর্থ হয়েছে বলেও জানান তিনি।
মার্কেটের মাহীন ফার্মেসীর স্বত্তাধিকারী ডা. আব্দুল মালেক জানান, দু’জন নৈশপ্রহরী থাকা সত্তেও স্টেট ফরওয়ার্ড ও নিরাপত্তা বেষ্টিত জায়গায় এরকম দুঃসাহসিক চুরির ঘটনায় মার্কেট কমিটি এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এমনকি দায়িত্বরত দু’জন নৈশপ্রহরীকে জিঙ্গাসাবাদ পর্যন্ত করা হয়নি। মার্কেটে চুরি হবে আর নৈশপ্রহরীকে জিঙ্গাসাবাদ করা হবে না এটা মেনে নেয়া যাবে না। নৈশপ্রহরী মোহাম্মাদ আলী চুরির সাথে জড়িত এটা নিশ্চিত। তাকে ছেড়ে না দিয়ে জোড়ালো ভাবে জিঙ্গাসাবাদ করলেই সঠিক তথ্য পেত পুলিশ।
থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, জিঙ্গাসাবাদের জন্য নৈশপ্রহরী মোহাম্মাদ আলীকে আটক করা হয়েছিল। জিঙ্গাসাবাদ শেষে স্বীকারোক্তি না পেয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে এঘটনায় নজরদারী বৃদ্ধি করা হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন