বগুড়া সংবাদ ডটকম (সিজুল ইসলাম, বগুড়া) : মেঘলা আকাশ সকাল থেকেই বৃষ্টির সম্ভাবনা শরৎ পেরিয়ে হেমন্তের শুরু। নতুন ধানের মৌ মৌ গন্ধে ছেয়ে গেছে চারদিক। কৃষকের উঠোন প্রস্তুত হতে থাকে কিষাণীর ব্যস্ততা বুঝিয়ে দেয় নবান্ন এসে গেছে। এক কথায় ধান কাটার মহোৎসব শুরু হয়ে গেছে। বাংলার চিরায়ত রূপ এটি। যান্ত্রিকতার এই যুগে নানা কৃষি উপকরণ থাকলেও পূর্বে কিছু মজার বিষয় ছিল। ঢেঁকিরও আগে কিষাণীরা উরানগাইন ব্যবহার করত চাল ছাঁটার জন্য। আর সেই উরানগাইন দিয়েই বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজের মুক্তমঞ্চে এবারের নবান্ন উৎসব উদ্বোধনের আয়োজন করে কলেজের শিকড় সন্ধানী নাট্য সংগঠন কলেজ থিয়েটার।
বৃহস্পতিবার ২রা অগ্রহায়ণ দিনব্যাপী নবান্ন উৎসব আয়োজনে ছিল আনন্দ পদযাত্রা, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, নবান্ন কতন, নবান্নের গান, কবিতা, নৃত্য,নাটক এবং ফিউশন পালা।
সকাল সাড়ে ১০টায় নবান্ন উৎসবের পদযাত্রা শুরু হয়। কলেজ মুক্তমঞ্চ থেকে শুরু হওয়া পদযাত্রাটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে আবার মুক্তমঞ্চে এসে শেষ হয়।
এরপর মঞ্চে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের কর্মযজ্ঞ শুরু হয়। লুঙ্গি আর পাঞ্জাবী পরে মঞ্চে উঠে আসেন উদ্বোধকসহ অতিথিরা। উরানগাইনে ধান ছাঁটার মধ্য দিয়ে নবান্ন উৎসব ১৪২৪ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উদ্বোধক ও প্রধান অতিথি সরকারি আজিজুল হক কলেজ বগুড়ার অধ্যক্ষ ও কলেজ থিয়েটারের প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর মোঃ সামস্-উল আলম। কিছুক্ষণের জন্য সবাই যেন ফিরে যায় পুরোনো দিনে যখন গ্রামের বউরা ধান ছাঁটার কাজটি করত এমন কষ্ট করে। কলেজ থিয়েটারের নাট্যকর্মীরা অতিথিদের কলার পাতায় ক্ষীর আর নতুন ধানের পিঠা পরিবেশন করে।

ক্যাম্পাস ভর্তি শিক্ষার্থীর করতালিতে মুখরিত হয় চারদিক। ছেলেরা পাঞ্জাবী আর মেয়েরা শাড়ি পড়ে উপস্থিত হয়েছে। তাদের সাথে শিক্ষকরাও যুক্ত হয়েছেন।
অতিথিদের গামছা পড়িয়ে বরণ করে নেয়া হয়। কলেজ থিয়েটার নবান্ন উৎসব স্মারক তুলে দেয় প্রধান অতিথির হাতে। নাট্যকলায় ২০১৭ সালে বিশেষ অবদানের জন্য বগুড়া জেলা শিল্পকলা একাডেমী কর্তৃক সম্মাননা পাওয়ায় বগুড়া থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হাসান ময়না, এবং লাভেলো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২য় রানার্স আপ হওয়ায় বগুড়া থিয়েটারের নাট্যকর্মী সঞ্চিতা রাণী দত্ত কে সংবর্ধিত করে কলেজ থিয়েটার। তাঁরা তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।
এরপর শুরু হয় নবান্ন কথন। নবান্ন কথনের সভাপতিত্ব করেন কলেজ থিয়েটারের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সিজুল ইসলাম। নবান্ন কথনে বক্তব্য রাখেন উদ্বোধক ও প্রধান অতিথি সরকারি আজিজুল হক কলেজ বগুড়ার অধ্যক্ষ ও কলেজ থিয়েটারের প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর মোঃ সামস্-উল আলম, কলেজ থিয়েটারের উপদেষ্টা এবং কারমাইকেল কলেজের ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রফেসর খৈয়াম কাদের, কলেজ থিয়েটারের উপদেষ্টা নওগাঁ সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. বেলাল হোসেন, কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর জহুরা ওয়াহিদা রহমান, সহযোগী অধ্যাপক ড. গাজী তৌহিদুল আলম চৌধুরী,বগুড়া ইয়ুথ কয়্যার এর সভাপতি আতিকুর রহমান মিঠু, বগুড়া বাউল গোষ্ঠীর সভাপতি আবু সাইদ সিদ্দিকী, কলেজ থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং বগুড়া থিয়েটারের সহ সভাপতি এ্যাডভোকেট পলাশ খন্দকার, কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি কে এম মোজাম্মেল হোসেন বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কলেজ থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক ওসমান গণি এবং নবান্ন উৎসব উদযাপনের আহবায়ক আরাফাত হোসেন।
নবান্ন কথন শেষে কলেজ থিয়েটারের নাট্যকর্মীরা গেয়ে উঠেন গান। দলীয় সংগীত পরিবেশন করেন।
এরপর মঞ্চায়িত হয় কলেজ থিয়েটারের নতুন নাটক “মহাদেব “। নাটকটির রচনা ওসমান গণি এবং নির্দেশনা শোভন চন্দ্র সরকার। ৪৭ সালের দেশভাগের সময় ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক একটি ঘটনা উঠে আসে নাটকে। নাটকের প্রেক্ষাপটে দেখা যায় কিছু কিছু এলাকায় হিন্দু মুসলিম দাঙ্গা লেগে যায়। পরিবারের সবাই পাকিস্তান ছেড়ে ভারতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে মহাদেব বিরোধিতা করে মাটি কামড়ে থাকতে চায়। এভাবে এগোতে থাকে নাটকের কাহিনী। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিজুল ইসলাম, ফারিহা রহমান রাইজা, কে এম আশিক, নির্মল মাহাতো, রাসেল মিয়া জাদু, সাকিব শুভ, মুগ্ধ, বিশাল চাকী। নেপথ্য সংগীতে ছিলেন সুব্রত কুমার সজল, সুবাস চন্দ্র দাস মিঠু, রাশিয়ান চন্দ্র,শামিমা আক্তার জুঁই, ঐশি রায়।
নৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যছন্দম আর্টস একাডেমীর নৃত্যশিল্পীরা। এরপর প্রথমবারের মত কলেজ থিয়েটার মঞ্চায়ন করে কুশান পালা, নছিমন পালা,বেহুলার পালা, আলকাপ, ময়মনসিংহ গীতিকা,বিয়ের গীত এবং যাত্রাপালার আঙ্গিক নিয়ে ফিউশন পালা “সংসার”। পালা ভাবনা সাইফুল ইসলাম বুলবুল এবং নির্দেশনা নির্মল মাহাতো। পালাশিল্পী সিজুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম বুলবুল, নির্মল মাহাতো, রাসেল মিয়া জাদু, কে এম আশিক, স্বাধীন, মুগ্ধ। আবহ সঙ্গীতে ছিলেন সুব্রত কুমার সজল, সুবাস চন্দ্র দাস মিঠু, রাশিয়ান চন্দ্র, শামিমা আক্তার জুঁই, ঐশি রায়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কলেজ থিয়েটারের সমন্বয়কারী আমজাদ হোসেন শোভন এবং সাইফুল ইসলাম বুলবুল। কলার পাতায় ক্ষীর পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় সরকারি আজিজুল হক কলেজ বগুড়ায় কলেজ থিয়েটারের নবান্ন উৎসব আয়োজন।
এবার কলেজ থিয়েটার তাদের এই আয়োজনে যুক্ত করেছে বগুড়ার স্বনামধন্য আরো দুটি কলেজ সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ এবং সৈয়দ আহম্মদ কলেজ কে। যথাক্রমে ২১ নভেম্বর এবং ২৩ নভেম্বর নিজ নিজ কলেজে নবান্ন উৎসব পালন করবে কলেজ থিয়েটার বগুড়ার শাখা সংগঠনগুলো।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন