বগুড়া সংবাদ ডট কম (শাজাহানপুর প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান) : কড়া পুলিশি পাহারায় বগুড়ার শাজাহানপুরে পুলিশ হেফাজতে নিহত বিএনপি নেতা মাসুদুল হক পিন্টুর (৫০) দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার বাদ আছর শাবরুল আস্তান শরীফ দাখিল মাদ্রাসা মাঠে নামাজে জানাজা শেষে শাবরুল মন্ডলপাড়া গ্রামে পারিবারিক তার দাফন সম্পন্ন হয়।
এর আগে মঙ্গলবার রাতেই জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন এবং বুধবার সকালে জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম পিন্টুর বাড়িতে গিয়ে শোকাহত পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দেন।
নামাজে জানাজায় জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, শাজাহানপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সরকার বাদল, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক আবুল বাশার, আশেকপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ সহ রাজনৈতিক, সামাজিক নেতৃবৃন্দ ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগন উপস্থিত ছিলেন। নামাজে জানাজা পূর্বক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তদন্ত পূর্বক ঘটনার সত্যতা প্রমানিত হলে দোষী ব্যক্তিদের বিচার দাবী করেন দলীয় নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি সহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দগন।
এর আগে পুলিশি নির্যাতনে হত্যার অভিযোগে দোষী ব্যক্তিদের বিচার দাবীতে স্থানীয়দের মানবন্ধন ও লাশ নিয়ে মিছিল করা হতে পারে এমন খবর পেয়ে বুধবার সকাল থেকেই শাবরুল ও আশপাশ এলাকায় পুলিশ মোতায়ন করা হয়। কড়া পুলিশ পাহারায় বাদ আছর দাফন সম্পন্ন হওয়ার পর সন্ধা পর্যন্ত পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।
নিহত বিএনপি নেতা পিন্টুর স্ত্রী খায়রুন নেসা জানান, বাথরুমে গোসল করা অবস্থায় পুলিশ বাড়িতে ঢুকে পিন্টুকে টেনে হেচড়ে বন্দুকের ডাট দিয়ে মারপিট করে। টানা-হেচড়ার একপর্যায়ে পুলিশ পিন্টুর পরনে লুঙ্গি খুলে ফেলে। এরপর মারপিট করতে করতে পিন্টুকে নিয়ে যায় পুলিশ।
নিহত পিন্টুর মা পিয়ারা বেওয়া জানান, পুকুর নিয়ে বিরোধের জের ধরে স্থানীয় প্রভাবশালীদের ইন্ধনে পুলিশ পিন্টুকে মারপিট করে মেরে ফেলেছে। মঙ্গলবার রাতে শাজাহানপুর থানায় মামলা করতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ। পুলিশ মামলা না নিলেও আদালতে মামলা করবেন বলে জানান তিনি।
থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলামকে মামলা না নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কি মামলা হতে পারে। বগুড়ার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আনিছুজ্জামান নিজে লাশের সুরতহাল করেছেন। সুরতহাল রিপোর্টে লাশের শরিরে মারপিটের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তাছাড়া হার্ট এ্যাটাকেই পিন্টুর মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসকগণ ডেথ সার্টিফিকেটে উল্লেখ করেছেন।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন