বগুড়া সংবাদ ডট কম (সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি রাহেনূর ইসলাম স্বাধীন) : বগুড়ার সারিয়াকন্দিতে রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় সারিয়াকান্দি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের জে.এস.সি’র পরীক্ষা কেন্দ্রে বজলুর রহমান বাঁধন (১৮) নামে কামালপুর ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি কে নকল সরবরাহের অভিযোগে সন্দেহভাজন হিসাবে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে ভ্রাম্যমান আদালত। জানা যায়, রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বজলুর রহমান বাঁধন পাইলট বালিকা স্কুলের সামনে তার ছোট ভাইয়ের পরীক্ষা শেষ হওয়ার অপেক্ষায় ছিল। তার পাশে বেশ কিছু বিশৃঙ্খল যুবক পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে অস্বাভাবিক চলাফেরা করছিল। এসময় বাঁধনের মোবাইল ফোনটি তার পকেট থেকে হারিয়ে যায়, এরপর সে বেশ কিছুক্ষন মোবাইল ফোন খোঁজাখুজি করার পর বেলা ১২টায় তার মোবাইল ফোনটি রাস্তার পাশে জঙ্গলের ভেতর সে পায়। এরপর বেলা ১২টার পর পুলিশের সহযোগিতায় সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মোঃ আব্দুল কাদের, বাঁধন ও তার আশপাশের যুবকের সন্দেহ মূলক চলাফেরা দেখলে তাদের কাছে যেতেই বাঁধনের আশপাশে থাকা যুবকেরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। বাঁধন সেখানে অবস্থান করায় তাকে আটক করে।
কামালপুর ইউনিয়ন ছাত্রীলীগ সভাপতি বজলুর রহমান বাঁধন এর সাথে কথা বললে সে বলে, এটা আমাকে ফাসানোর জন্য একটি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র, এ ক্ষেত্রে গণমাধ্যম কর্মীদের সে বলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কোন কর্মী এরকম কর্মকান্ডের সাথে কোন ভাবেই লিপ্ত থাকতে পারে না, আর আমি তো অনেক দূরে কথা।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, সারিয়াকান্দি উপজেলা শাখার আহ্বায়ক এম. তোফাজ্জল হোসেন মায়া বলেন, কামালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতিকে নিয়ে যে সংবাদ প্রকাশ হচ্ছে তা একটি ভুল বোঝাবুঝি কে কেন্দ্র করে। আসলে সে নকল সরবরাহ করেনি। যে করেছে সে দৌড়ে পালিয়ে গেছে। ছাত্রলীগের সভাপতি সেখানে অবস্থান করায় সন্দেহ করে কর্তব্যরত কর্মকর্তা তাকে আটক করে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন