বগুড়া সংবাদ ডট কম (নন্দীগ্রাম প্রতিনিধি মো: ফিরোজ কামাল ফারুক) : বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার দুটি ইউনিয়নের নিচু এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। ভারি বৃষ্টি ও উজানের ঢলে নাগর নদীর পানি উপচে এবং পারশুনে বাঁধ ধসের কারণে উপজেলার ২০ টি গ্রামের মাঠ বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। পাশাপাশি কিছু কিছু ঘরবাড়িসহ পোষ্ট অফিসে পানি উঠতে শুরু করেছে।
জানা গেছে, উপজেলার থালতা মাজগ্রাম ইউনিয়নের সারাদীঘর, নিমাইদিঘী, বাঘাদহ, পারঘাটা, গুলিয়া, কৃষ্ণপুর, ঘুনপাড়া, জামালপুর, গোপালপুর, বনগ্রাম, পারশুন ও ভাটরা ইউনিয়নের নাগরকান্দি, রুস্তমপুর, দমদমা, ডেওবাড়ি, বৃষ্ণপুর, শশিনগর, চাতরাগাড়ি, কালিয়াগাড়ি, মূলকুড়ি মাঠ পানিতে থৈ-থৈ করছে। পানিতে তলিয়ে রয়েছে ১০৭০ হেক্টর জমির আমন ধান। ফলে ভারি বৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধিতে ওই এলাকায় কৃষিতে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। দমদমা গ্রামের কৃষক আলমগীর হোসেন বাচ্চু বলেন, তার ২৮ বিঘা জমির আমন ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। তাছাড়া দমদমা গ্রামের পোষ্ট অফিসে পানি ঢুকছে। এদিকে গত বৃহস্পতিবার সকালে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: শরীফুন্নেসা, উপজেলা চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) জিএম সাইফুল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নজরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারী, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা খালেদা ইয়াসমিন প্রমূখ। এছাড়া বিকেলে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: শরীফুন্নেসা বলেন, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। এছাড়া দূর্যোগ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসন তৎপর রয়েছে। আশা করছি দ্রুত পানি নেমে যাবে।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন