বগুড়া সংবাদ ডট কম (সোনাতলা সংবাদদাতা মোশাররফ হোসেন) : বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার বালুয়াহাট এলাকায় সিএনজি চালক হাসান (৩০) হত্যা ঘটনার সাথে জড়িত অভিযোগে পুলিশ ২ জনকে গ্রেফতার ও সিএনজিটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।
গত ২৮ জুলাই/১৭ গভীর রাতে যাত্রী বেশে কয়েকজন দুর্বৃত্ত হাসানের সিএনজিতে চড়ে বালুয়াহাট এলাকায় আসে। ওই সিএনজি কোথাও রেখে দুর্বৃত্তরা কৌশলে হাসানকে সাথে নিয়ে বালুয়াহাট কলেজের দক্ষিণে মেহগনি গাছের বাগানের মধ্যে নিয়ে যায়। সেখানে হাসানের গলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে হত্যা নিশ্চিত করার পর পাশেই ধানক্ষেতের মধ্যে ফেলে রেখে সিএনজিটি নিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরদিন সকালে থানার পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে হাসানের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। হাসান বগুড়া সদরের সেউজগাড়ি এলাকার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। এ ব্যাপারে বগুড়া সদরের কৈচড় এলাকার বাবু ও সুজনের বিরুদ্ধে ২৯ জুলাই/১৭ সোনাতলা থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। পুলিশ চেষ্টা করেও তাদেক গ্রেফতার করতে না পারলেও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ৪ নভেম্বর বেলা ১১টার দিকে বালুয়া ইউনিয়নের বড় বালুয়া গ্রামের লুৎফর রহমান মন্ডলের ছেলে বেলাল হোসেন (৪০) ও দক্ষিণ আটকরিয়া গ্রামের সিরাজ-এর ছেলে মিনু (২৬) সহ ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় ডেকে আনে। এ দু’জনের দেয়া তথ্যানুযায়ী সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) মশিউর রহমান,সোনাতলা থানার ওসি (তদন্ত) জালাল উদ্দিন ও এসআই মিনার আলী গতকাল সোমবার (৬ নভেম্বর) সকালে পাবনা জেলার আমিনপুর উপজেলার সাগরকান্দি গ্রামে একটি রাস্তা থেকে ওই সিএনজিসহ দুইজনকে আটক করেন। আটককৃত দু’জন হ’ল সাগরকান্দি এলাকার একরাম হোসেন (৪৫) ও একই এলাকার আরিফুল ইসলাম বাবু (২৫)। এ দু’জন হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত নয়। তারা সিএনজিটি ক্রয় করেছেন। তবে বেলাল হোসেন ও মিনুকে হাসান হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে জেলহাজতে পাঠানো হবে বলে এসআই মিনার আলী জানিয়েছেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন