বগুড়া সংবাদ ডট কম (শেরপুর প্রতিনিধি রায়হানুল ইসলাম) : বগুড়ার শেরপুরের খামারকান্দি মালিপাড়া গ্রামের বৃষ্টি রানী (১৩) কে অপহরন করার ঘটনার ১০দিন অতিবাহিত হলেও উদ্ধার করতে পারেনি থানা পুলিশ। মেয়েকে হারিয়ে হতাশায় রয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার।
জানা যায়, শেরপুর উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের মালিপাড়া গ্রামের মনি মালির ছেলে সুমন্ত মালী তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় গামের্ন্টেসে চাকুরীতে চলে যায়। এসময় সুমন্ত তার কাকিমা বন্দনার কাছে তার স্কুল পড়–য়া মেয়ে বৃষ্টি রানী ও ছোট ছেলে বিশ্বজিৎ কে রেখে যায়। কর্তামা বন্দনার কাছে থেকে বৃষ্টি ও বিশ্বজিৎ লেখাপড়া করে আসছিল। এর প্রেক্ষিতে গত ২০ অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে একই এলাকার তপন মালির স্ত্রী প্রতিমা রানী বৃষ্টিকে নিয়ে ঔষধ কেনার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় বলে ছোটভাই বিশ্বজিৎ বলে। ঘটনার পর থেকে বৃষ্টি ও প্রতিমাকে খুজে পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে বৃষ্টি রানীকে খুজে পাওয়া যাচ্ছেনা খবর পেয়ে ঢাকা থেকে তার বাবা সুমন্ত মালী ফিরে এসে তার আত্মীয়-স্বজনের মাধ্যমে খোজাখুজি শুরু করেও পায়নি। এ ঘটনার ২দিন পর সুমন্ত বাদি হয়ে প্রতিমা রানী, রতন মালি, তপন মালি, অমুল্য মালী ও সাবিত্রী মালীকে বিবাদী করে শেরপুর থানায় একটি অভিযোগ করেছেন বলে থানার উপ-সহকারি পুলিশ পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন। এদিকে থানা পুলিশে অভিযোগ দায়েরের ১০ দিন অতিবাহিত হলেও অপহৃত বৃষ্টি রানীকে উদ্ধার করতে না পারায় হতাশায় রয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার।
এ প্রসঙ্গে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ এরফান বলেন, অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থাসহ বৃষ্টিকে উদ্ধারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন