বগুড়া সংবাদ ডট কম (শিবগঞ্জ প্রতিনিধি রশিদুর রহমান রানা) : বগুড়ার শিবগঞ্জ মোকামতলা ইউনিয়নের হতদরিদ্র গবীর ও দুস্থদের মাঝে বরাদ্দকৃত ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা ১৮ জন নারী ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে। অভিযোগের সূত্রে জানাযায় শিবগঞ্জ উপজেলা মোকামতলা ইউনিয়নের গবীর ও দুস্থদের মাঝে সরকার ঘোষিত সাধারন ভিজিডি অনুমোদন দেয়া তালিকায় নাম থাকা সত্বেও ১৮ জন কার্ড ধারী নারী গত ৯ মাস যাবৎ কোন প্রকার চাল পাইনি। অত্র ইউনিয়নের সাতানা চাকলামা ও মুরাদপুর গ্রামের স্বপ্না বেগম, হামিদা খাতুন, মাহমুদা বেগম, শিউলী আক্তার, মমেনা সহ ১৮ জন হতদরিদ্র নারীরা তাদের ছবি ও ভোটার আইডি কার্ড ফটোকফি সহ ইউনিয়ন পরিষদে গত ১বছর পূর্বে কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তাদের কার্ড না দিয়ে তাদের বরাদ্দকৃত চাল প্রতি মাসে অন্যকেউ উত্তলোন করে নিয়ে যায়। তাদের নামে কার্ড তৈরি ও চাল না দেওয়ায় মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর ১৮নারী অভিযোগ দাখিল করেন। অনুমোদন তালিকা থেকে বাদ পড়া মোমেনা বেগম সহ বেশ কয়েক জন বলেন, আমরা গত ১বছর যাবৎ কাগজ পত্র জমা দিয়েছি কিন্তু বর্তমানে চেয়ারম্যান আমাদের কার্ড ও চাল দিচ্ছে না চেয়ারম্যান আমাদেরকে বলেন তোমাদের চাল অন্যকেউ উত্তলোন করে নিয়ে গেছে। তালিকা থেকে বাদ পড়া নারীরা আরো বলেন আমরা জানতে পেরেছি আমাদের নাম ঠিকানা সঠিক রেখে শুধু ছবি পরিবর্তন করে তাদের মন মতো লোকদ্বারা চাল উত্তোলন করছে। আমরা এর সঠিক তদন্তের সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোকলেছুর রহমান কথা বলে তিনি বলেন এ ১৮ টি কার্ড জাতীয় পার্টির বরাদ্দ। মোকামতলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক ১৮ টি ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি আমার কাছে জমা দিয়ে তালিকা তৈরী করতে বলেন। তালিকা তৈরি হয়ে গেলে জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক ১২ টি বই নেয় আর বাকি গুলো মেম্বার শহিদুলকে দিতে বলেন। এরপর যথারীতি কার্ড অনুযায়ী চাল উত্তলোন করে কে বা কাহারা নিয়ে যায় আমার জানা নাই। মেম্বার শহিদুলের সাথে ফোনে কথা বললে তিনি বলেন যেহেতু এটি জাতীয়পার্টির বরাদ্দকৃত কার্ড এই কার্ডগুলো মোকামতলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির যুব সংহতির গরীরদের নারীদের মাঝে বিতরন করা হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবীর বলেন আমি বিষয়টি জানতে পেরেছি যদি ঘটনাটি সত্য হয় তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন