বগুড়া সংবাদ ডট কম (দুপচাঁচিয়া প্রতিনিধি আবু রায়হান) :  দুপচাঁচিয়া উপজেলা বন বিভাগ কর্তৃক বিভিন্ন রাস্তায় সৃজনকরা বাগানের গাছ ওই বিভাগের সাথে কোন প্রকার সমন্বয় না করেই গাছের মাথা ও ডালপালা সম্প্রতি বগুড়া পল¬ী বিদ্যুৎ সমিতির দুপচাঁচিয়া এলাকার কর্মচারীরা কেটে ফেলেছেন। সরেজমিনে ধাপ-মোলামগাড়ী রাস্তার কাথহালী পয়েন্টে গিয়ে দেখা যায় রাস্তার পাশ দিয়ে প্রবাহিত বিদ্যুতের লাইনের নিচে রোপনকৃত গাছগুলি নির্বিচারে কাটা হয়েছে। এতে যেমন পরিবেশের ক্ষতি হয়েছে তেমনিভাবে ওই গাছগুলির পরিচর্যায় নিয়োজিত উপকারভোগীরাও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এলাছাড়ও দাইমপুর-বেড়াগ্রাম রাস্তার গাছও একইভাবে পল্ল¬ী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মচারীরা বনবিভাগের সাথে সমন্বয় না করেই কেটে ফেলেছে।
ধাপ-মোলামগাড়ী সড়কের উপকারভোগী সমিতির সদস্য মুনছুর আলী সহ কয়েকজন সদস্য জানান, পল্ল¬ী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনকে গাছ না কাটার জন্য নিষেধ করলেও আমাদের কথা উপেক্ষা করে জোরপূর্বক তারা গাছের মাথা কেটে ফেলে।
উপজেলা সামাজিক বনায়ন নার্সারী ও প্রশিক্ষন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটিএম আক্তারুজ্জামান মুঠোফোনে জানান, উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় নির্দিষ্ট ফোরামের মাধ্যমে বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি দুপচাঁচিয়া এলাকার উপমহাব্যবস্থাপক আব্দুর রহিমকে অনুরোধ করলেও তিনি আমার বিভাগকে অবহিত না করেই ওই রাস্তাগুলোর গাছের মাথা ও ডালপালা কেটে ফেলেছে।
বগুড়া পল¬ী বিদ্যুৎ সমিতি দুপচাঁচিয়া এলাকার উপমহাব্যবস্থাপক আব্দুর রহিম মুঠোফোনে উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় বিদ্যুৎ লাইনের পাশ দিয়ে লাগানো রাস্তার গাছ কাটার বিষয়ে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা কর্তৃক অবহিত করার কথা স্বীকার করে জানান, তিনি ব্যক্তিগতভাবে কোনো সময় আমাকে আমার কর্মচারী দ্বারা রাস্তার পাশে বনবিভাগের সৃজনকৃত বাগানের গাছ কাটার কথা বলেননি। তবে আমার কর্মচারীরা ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের কাজ না করে তার জন্য তাদেরকে সতর্ক করে দিবো।
উপজেলা বন ও পরিবেশ উন্নয়ন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহেদ পারভেজ উপজেলা উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটির সভায় বন বিভাগের পক্ষ থেকে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও পল্ল¬ী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন কর্র্তৃক রাস্তার পাশের গাছ কাটার বিষয়ে আপত্তি উত্থাপনের কথা স্বীকার করে জানান, এ বিষয়ে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও পল¬ী বিদ্যুৎ সমিতির কর্তকর্তাগণকে বনবিভাগের সাথে সমন্বয় করে রাস্তার পাশের গাছ কাটার জন্য বলা হয়েছে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন