বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার সান্তাহারের মালশন গ্রামে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নবম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষন করার ঘটনা ঘটেছে। ওই ছাত্রীর মা বিষয়টি থানা পুলিশ কে লিখিত ভাবে জানালেও রহস্যজনক কারনে নীরব ভ’মিকা পালন করছে।
লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, সান্তাহার পৌর শহরের মালশন গ্রামের ময়নুল হকের মেয়ে (১৬) শহরের এসএমআই একাডেমি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। তাদের প্রতিবেশী আসলাম হোসেনের ছেলে আরিফ হোসেন (১৮) প্রায়ই ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এক পর্যায়ে সে ওই ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এর পর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দৈহিক মেলামেলা করার জন্য চাপ দিয়ে আসছিল। পরে মঙ্গলবার গভীর রাতে ওই ছাত্রীর মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে আরিফ ওই ছাত্রীর শয়ন ঘড়ে ঢোকে এবং জোড় পুর্বক ধর্ষন করার সময় পাড়াপ্রতিবেশীরা ধরে ফেলে। এ সময় ধর্ষক যুবক আরিফ তার বাবা আসলাম হোসেন ও মা লিপি বেগম ছেলের সাথে মেয়েটির বিয়ে দেবে মর্মে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ছেলেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। তার পর সব কিছু অস্বিকার করে। এর পর ওই ছাত্রীর মা সুমি বেগম বৃহস্পতিবার আদমদীঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে জানায়। কিন্তু ৩ দিনেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। এখন ওই ছাত্রীর অভিভাবকরা বিচারের আশায় দ্বাড়ে দ্বাড়ে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে। এ ব্যাপারে শনিবার বিকালে আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্য ওয়াহেদুজ্জামান অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন