বগুড়া সংবাদ ডট কম : বগুড়া বিসিআইসি বাফার গুদামে ২ জন শ্রমিককে বহিষ্কারের ঘটনায় শ্রমিকদের অনির্দিষ্ট কালের কর্মবিরতি শুরু হয়েছে। সকাল থেকে বগুড়া ট্রেড ইউনিয়নের সদস্যভুক্ত বিসিআইসি সার গুদাম কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিকরা এ কর্মবিরতি শুরু করে। শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মাস দুয়েক আগে বগুড়া বাফার গুদাম থেকে ১৪৩বস্তা জমাট বাধা সার আটক করে ডিলার এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দরা। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বগুড়ার একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়ে ৩সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করে বগুড়া জেলা প্রশাসন। এখন পর্যন্ত বিষয়টি তদনান্তাধীন রয়েছে। কিন্তু এ ঘটনার প্রায় ২০দিন পর সেখানে কর্মরত ২জন শ্রমিককে বহিষ্কার করে সেখানকার কতৃপক্ষ। শ্রমিকদের জানানো হয় মেসার্স জারমান আলী ট্রেডার্স নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২জন শ্রমিক মোঃ শাহ আলম ও আব্দুর রহমান কে সাময়িকভাবে কাজ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। কিন্তু তার পর দেড় মাস পেরিয়ে গেলেও ঐ দুইজন শ্রমিককে কাজে পুর্ণবহাল করছে না কতৃপক্ষ। শ্রমিকরা অভিযোগ করে জানান, বিষয়টি নিয়ে তারা বাফার গুদামের কর্মকর্তাদের সাথে, বগুড়া ট্রেড ইউনিয়ন এবং বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার এসোসিয়েশন বগুড়ার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন সহ বিভিন্ন দপ্তরে দিনের পর দিন ধর্ণা দিয়েও এ বিষয়ের কোন সুরাহা হয়নি। তাই একরকম বাধ্য হয়েই তারা এ রকম সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন। এদিকে এ বিষয়ে বাফার গুদামের ইনচার্জ মোঃ জসিম উদ্দিনের সাথে কথা বললে তিনি জানান আমরা মের্সাস জারমান আলী ট্রেডার্স এর আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদেরকে সামিয়কভাবে কাজ থেকে বিরত রাখা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগটির বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অচিরেই এ সমস্যার সমাধান হবে। মের্সাস জারমান আলী ট্রেডার্স এর সত্ত্বাধীকারী রজব আলী বাবুর সাথে ০১৭১৬৪১৬৬১৫ এই নাম্বারে ফোন করলে তিনি জানান ঐ ২জন শ্রমিকের বিষয়ে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নিতীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাদেরকে কাজ অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের বিষয়ে কোন সুপারিশ করেনি বিধায় তাদেরকে কাজে যোগদানের বিষয়ে আবেদন করা হয়নি। অবিলম্বে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন