bograsangbad_Logoবগুড়া সংবাদ ডটকম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) :বগুড়ার কাহালু উপজেলার মুরইল ইউনিয়নের ওলাহালী গ্রামের ভ্যান চালক বুলবুল (১৬)কে মারপিট ও হুমকি দিয়ে আতœহত্যায় বাধ্য করার অভিযোগে মামলা দায়ের। মৃতঃ বুলবুলের পিতা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে গত ১২ অক্টোবর বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২০সি/২০১৭ (কাহালু)। সরেজমিনে ও মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মুরইল ইউনিয়নের ওলাহালী গ্রামের দরিদ্র জাহাঙ্গীর আলমের পুত্র বুলবুল ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিল। কিছু দিন পূর্বে ভ্যান ভাড়ার টাকা লওয়াকে কেন্দ্র করে একই ইউনিয়নের দেহর গ্রামের ডাক্তার পাড়ার হেলাল উদ্দিনের পুত্র সজীব (২০), দেহর উত্তর পাড়ার মৃতঃ ইছাহাক আলীর পুত্র আলাম মোস্তফা (৪২) এবং দেহর মধ্য পাড়ার সিরাজুল ইসলামের পুত্র সাব্বির হোসেন (২০) এর সাথে ভ্যান চালক বুলবুলের কথা কাটাকাটি হয় এবং শুক্রতা সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে গত ০৯/১০/১৭ ইং তারিখ সন্ধ্যায় ভ্যান চালক বুলবুল উপজেলার এরুইল বাজারে যায়। বুলবুল বাজারে গেলে মামলার আসামী সজীব, আলাম মোস্তফা ও সাব্বির হোসেন তাকে একা পেয়ে এলোপাথারি ভাবে মারপিট করে গলা টিপে ধরে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার চেষ্টা করে এবং বিভিন্ন প্রকার ভয় ভিতি দেখিয়ে তাকে আতœহত্যার প্ররোচনা দেয়। তারা আরোও বলেন তুই যদি আতœহত্যা না করিস তাহলে আমরা তোকে মেরে ফেলবো। বুলবুলের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসলে আসামীরা পালিয়ে যান। পরদিন গত ১০ অক্টোবর সকালে বুলবুল আসামীদের আতœহত্যার প্ররোচনায় সবার অজান্তে বাড়ীর দক্ষিণ পার্শ্বে পুকুর পাড়ে গিয়ে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঐদিন রাতেই হাসপাতালে মারা যান।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন