বগুড়া সংবাদ ডট কম : কতিথ ধর্মশালার নামে ঐতিহাসিক বগুড়া শহরের প্রাণকেন্দ্র সাতমাথায় সরকারী সম্পদ রাতের আঁধারে দখল করায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বগুড়া জেলা যুবদল’র সভাপতি ও কাউন্সিলর সিপার আল বখতিয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক খাদেমুল ইসলাম খাদেম, শহর যুবদল’র সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্দে বিন বিল্লাহ শান্ত, সিনিঃ নেতা জহুরুল ইসলাম ফুয়াদ, সদর উপজেলা যুবদল সভাপতি রাফিউল ইসলাম রুবেল, অধ্যক্ষ শাহীন, আনোয়ার হোসেন সান্টু, সুরুজ, মহররম হোসেন টপিন, এম.এ হান্নান, শামীম, খান আলতাফ, ইঞ্জিঃ জিয়াউল ইসলাম আপেল, মানিক, মিনহাজ্ব, রোকন, সিজুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন সেখানে শহর যুবদলের একটি কার্যালয়, ওষুধের দোকান, ব্যাংক, শোরুম-গোডাউন এবং সাধারন খেটে খাওয়া মানুষরা সরকারি কোষাগারে খাজনা দিয়ে দোকান দিয়ে জিবীকা নির্বাহ করে আসছে দির্ঘ্যকাল ধরে। হঠাৎ করে উরে এসে জুরে বসেছে কথিত ধর্মশালা সংগঠন। এ সম্পত্তি নিয়ে সরকারি বাদি হয়ে উচ্চ আদালতে মামলা/মোকদ্দমা চলমান রয়েছে, তাদের কোন বৈধ কাগজপত্র নাই। তারা সরকারি সম্পত্তি আত্মসাত করার জন্য বগুড়ার কতিপয় শাসক শ্রেণি নেতার স্মরানাপন্ন হয়ে অবৈধভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা তিব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি সেই সাথে প্রসাশনের সু-দৃস্টি কামনা করছি। এ ঘটনায় বগুড়ার যুবদলের নেতৃবৃন্দ ফুঁসে উঠেছে। অনতিবিলম্বে ওই স্থান থেকে ধর্মশালা নামে ভুমিদস্যুগণ নিজেদের প্রত্যহার না করে নিলে যে, কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য দায়ী থাকবে। [খবর বিজ্ঞপ্তি]

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন