বগুড়া সংবাদ ডট কম (আদমদীঘি প্রতিনিধি সাগর খান) : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা সরকারী হাসপাতালের দক্ষিণ প্রাচীর সংলগ্ন হাসপাতালের জায়গা নিজেস্ব ক্ষমতার বলে জবর দখল করে আর সি সি প্লিয়ার তুলে নিজ বাড়ীর সদর গেট ও একটি ঘড় নির্মান করায় চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে শতাধিক মানুষ অতি কষ্টে জীবন যাপন করছে। সরকারী হাসপাতালের জায়গা জবর দখল করলেও হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে স্থানীয়রা জানায়। সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন স্থানীয়রা।
সরেজমিনে দেখাযায়, আদমদীঘি উপজেলা সদরের ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল রয়েছে। এ হাসপাতালে দক্ষিণ পাচির নির্মান করার চলাচলের জন্য জায়গা ছেড়ে প্রাচির নির্মান করেন। প্রাচিরের বাহিরে হাসপাতালের সরকারী জায়গা দিয়ে হাসপাতালের পূর্ব ধারে মরকোটা পাড়ার ৪০টি পরিবারের লোকজন যাতায়েত করে থাকেন। ওই প্রভাবশালী ব্যাক্তি নিজের ক্ষমতা বলে সরকারী হাসপাতালের জায়গা জবর দখল করে বাড়ীর মেইন গেট ও একটি ঘড় নির্মান করে জনগনের চলাচলের পথ বন্ধ করে দেয়। এদিকে ওই চলাচলের পথ বন্ধ হওয়ায় ৪০ টি পরিবারের মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করছে। নিরহ সাধারন মানুষগুলোকে। তাদের পরিবারের কোন লোকজন অসুস্থ হলে হাসপাতালে নিতে হচ্ছে অনেক কষ্ট করে। এমন কি কেই মারা গেলে তাদের দাফনের খাটিয়া বহন করতে হয় আবাদী জমির ভিতর দিয়ে। মরকোটা পাড়ার এজাজুল ও আতোয়ার রহমান সহ অনেকে জানায়, হাসপাতালের পাচির সংলগ্ন চলাচলের রাস্তা বন্ধ হওয়ায় অতি কষ্টে চলাচল করতে হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শহিদুল্লাহ দেওয়ান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতালের পাচির নির্মানের সময় স্থানীয় লোকজনের চলাচলের জন্য তৎকালিন কর্মকর্তা পাচিরের বাহিরে কিছু জায়গা ফাঁকা রাখে। উক্ত জায়গা নিরশনের জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানায়, জনগনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ হওয়ায় সীমাহীন দূভোর্গ পোহাচ্ছে স্থানীয়। ওই মরকোটা পাড়ারার লোকজন ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ করলে প্রভাবশালী বাড়ীওয়াকে নৌটিশ করলেও তিনি ইউনিয়ন পরিষদে হাজির হয়না। জনগনের চলাচলের রাস্তা নিরশনের জন্য উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন সকলেই।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন