বগুড়া সংবাদ ডটকম ( শেরপুর প্রতিনিধি কামাল আহমেদ) বগুড়ার শেরপুরে নর্দান ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানী (নেসকো) অফিসে পিচরেট কর্মচারীদের মারধর পূর্বক চাঁদাদাবী করেপসট কর্মচারীসহ বহিরাগত সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় গত ১ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার রাতে ১১জনকে আসামী করে মামলা দায়ের হয়েছে।
অভিযোগে জানা যায়, শেরপুর নর্দান ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানী (নেসকো) এর বিদ্যুৎ ও বিতরণ বিভাগে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ বিল প্রস্তুত ও বিতরণ করে আসছে পিচরেট কর্মচারী। কিন্তু নেসকো কোম্পানী কর্তৃক টেকনো ইনডেক্স লি: (টিআইএল) ও কম্পিউটার সার্ভিসেস লি: (সিএসএল) এ চুক্তিভিত্তিক নিয়োগকৃত ¯œাপসট কর্মচারীরা গত বৃহস্পতিবার সকালের দিকে শেরপুরের বিদ্যুৎ অফিসে পুরো এলাকায় মিটার বিল করার জন্য ¯œাপসট কর্মকান্ড চালানোর জন্য পিচরেট কর্মচারীদের নিষেধ করে। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ¯œাপসট কর্মচারীসহ বহিরাগত কয়েকজন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মারধর শুরু করে পিচরেট কর্মচারীদের উপর এবং ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। এ ঘটনায় পিচরেট কর্মচারী সুলতান মাহমুদের ছেলে আজিজুল হক রনি গুরুতর আহত হয়ে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। এ বিষয়ে পিচরেট কর্মচারী সুলতান মাহমুদ বাদি হয়ে মামুনুর রশিদ আপেল, বেলাল হোসেন, আরিফসহ নামে-বেনামে ১১জনকে আসামী করে শেরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
এ প্রসঙ্গে নর্দান ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানী (নেসকো) এর অধীস্থ বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী গোপাল চন্দ্র সাহা বলেন, পিডিপি কোম্পানীতে স্থানান্তরের পর থেকেই পিচরেট ও ¯œাপসট কর্মচারীদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। তবে এটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা।
এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর বলেন, এঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারের পুলিশ তৎপর রয়েছে।

 

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন