বগুড়া সংবাদ ডটকম : বগুড়া-জয়পুরহাট নিয়ে গঠিত সংরক্ষিত মহিলা আসনে অনেকেই মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন। তবে সব ধরনের যোগ্যতা বিবেচনা করে শেষ পর্যন্ত কে শেষ হাসি হাসবেন তা নির্ভর করছে আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর। বৃহত্তর বগুড়া থেকে যারা মনোনয়নপত্র কিনেছেন তাদের মধ্যে অনেকের নাম বাতাসে ভাসলেও কোহিনুর মোহনের নাম বেশ ভালোভাবেই উচ্চারিত হচ্ছে। অবশ্য এর পিছনে তাঁর অতীত ইতিহাস অনেক বড় করে দেখা হচ্ছে। বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক সভাপতি ছাত্রনেতা থেকে জননেতা জনাব মঞ্জুরুল আলম মোহনের সহধর্মীনি হিসেবে তাঁকে যে সংগ্রাম করতে হয়েছে সেটাও একটি বিবেচ্য বিষয়। অন্য যারা কিনেছেন তাদের রাজনৈতিক ইতিহাস যথেষ্ট শক্তিশালী হলেও কোহিনুর মোহনের নাম বিশেষ ভাবে উচ্চমহলে বিবেচ্য হচ্ছে। বগুড়া -জয়পুরহাট অঞ্চলের জন্য একজন সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য থাকবেন ইতিমধেই এ অঞ্চলের সম্ভব্য প্রার্থীরা বিষয়টি নিয়ে দলের কাছে জোর প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা দলের কাছে বিগত সময়ের কর্মকান্ড তুলে ধরছেন। দলীয়ও সূত্র জানায় এবার যারা পূর্বে সংসদ সদস্য হননি দলের দুর্দিনে যারা পাশে ছিলেন এমন ব্যক্তিকেই প্রাধান্য দেওয়া হবে।

সেক্ষেত্রে কোহিনুর মোহন অনেক এগিয়ে। কারন বৈবাহিক সূত্রে বগুড়ায় রাজনীতিতে অংশগ্রহনের পর থেকে স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে যুব ও ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন বেগবান করেন। চারদলীয় বিএনপি- জামাত সরকারের সময় তারেক রহমানের রক্তচক্ষু অপেক্ষা করে যুবলীগ ও ছাত্রলীগকে সংগঠিত করেন।১/১১ এর সময় অতীতের ন্যায় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন বেগবান করেন।শুধু তাই নয় বগুড়ার যুবলীগ – ছাত্রলীগ যখনই নেতৃত্ব শূণ্যতায় তখনই মায়ের মমতায় আগলে রেখেছেন কোহিনুর মোহন।গত একাদশ নির্বাচনে বগুড়ার তৃণমূলের প্রতিটি ঘরে ঘরে মহাজোট মনোনীত প্রার্থীদের পক্ষে ধারাবাহিক কর্মসূচির মাধ্যমে ব্যাপক গনসংযোগ প্রচারণা করেন।যা নির্বাচনে বগুড়ার চারটি আসন প্রাপ্তিতে প্রমানিত হয়।

দলীয় নেতাকর্মীরা জানান, কোহিনুর মোহনের মতো মুজিব আদর্শের নারী নেতৃত্ব জনপ্রতিনিধি হিসাবে যদি আমরা পাই তাহলে তা হবে সরকার, দলমত নির্বিশেষে সবার জন্য অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন