বগুড়া সংবাদ ডট কম (কাহালু প্রতিনিধি এম এ মতিন) : বাংলায় মুসলিম বিজেতা আমলের আগে ইসলাম ধর্ম প্রচারে অত্র উপজেলায় আসেন শাহ্ সুফী হযরত সৈয়দ কালু পীর (রহঃ)। বর্তমানে কাহালু থানার পিছনে এক সময় বটগাছ, জামগাছ ও তালগাছ ছিল। যখন ইসলাম প্রচারে কালু পীর (রহঃ) আসেন তখনই বটগাছের নীচে তিনি আস্তানা গাড়েন। তার সুফীবাদের আদর্শ ও দর্শনে ঐ সময় অনেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে অনুসারী হন এই পীরের। এই পীরের সম্পর্কে কেউ বিস্তারিত কোনো তথ্য দিতে না পারলেও প্রবীন জনদের ধারণামতে ইরাক থেকে ইসলাম প্রচারের জন্য এখানে এসেছিলেন কালু পীর (রহঃ)। তিনি মারা যাওয়ার পর তার অনুসারীরা এখানেই তাকে দাফন করেন। এই পীরের আদর্শের কথা চিন্তা করে অনুসারীরা এক সময় তার নামেই কাহালুর নাম করণ করেন। অতীতে কালু নামেই কাহালু পরিচিত ছিল। পরবর্তিতে কালু নাম থেকে কাহালু হয়। এখনে উপজেলার পল্লী এলাকার প্রবীন জনেরা কাহালুকে কালু বলে। কাহালু থানা হওয়ার আগ পর্যন্ত এই মাজারের তেমন গুরত্ব ছিল না। থানা হওয়ার পর কোনো এক দারোগা মাঝে-মধ্যে স্বপ্ন দেখতো। ঐ দারোগে থানার পিছনে প্রতিদিন সন্ধ্যায় মোমবাতি জ্বালাতো। সেই থেকে এখানে কালু পীরের মাজারের অনেক গুরুত্ব বাড়ে। প্রতি মাসে এখানে জিয়ারত হয়। জিয়ারতে জিকিরে মশগুল হন ভক্তরা। প্রতি বছর মার্চ অথবা এপ্রিল মাসে ২দিন ব্যাপী ওরশ শরীফ অনুষ্ঠিত হয়। ওরশ শরীফে হাজার হাজার নারী/পুরুষ ভক্তরা আসেন।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন