বগুড়া সংবাদ ডট কম (শিবগঞ্জ প্রতিনিধি রশিদুর রহমান রানা) : মোফাজ্জল হোসেনের বাবা,মা,২ছেলে আর স্ত্রী গোলাপীর সাংসার চলে সিএনজি চালিয়ে। তাই তো প্রতিদিন মোকামতলা কিংবা আমতলীতে সে ভাড়ার অপেক্ষায় থাকেন। সিএনজি চালক মোফাজ্জল হোসেন (৪৫) বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার আমতলী গুড়াতাপাড়া গ্রামের আলতাফ আলী প্রামানিকের ছেলে।
পারিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গত শনিবার সকালে মোফাজ্জল হোসেন সিএনজি নিয়ে ভাড়ার উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পরেন। স্ত্রী গোলাপী জানান, রাত পেরিয়ে গেলেও স্বামী আর বাসায় ফিরে নি। তাঁর মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পান তারা। এনিয়ে বিভিন্ন আত্মিয় স্বজনের বাসায় খোঁজাখুজিঁ করেন তারা।
পরদিন রোববার সকালে মহিমাগঞ্জ-সোনাতলা রোডে জীবনগাড়ী ব্রীজের পাশে একটি ডোবায় এক ব্যক্তির মৃতদেহ গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ উদ্ধার করেন। ফেসবুকে ছবি দেখে স্ত্রী গোলাপি ঘটনাস্থলে গিয়ে তারঁ স্বামীর লাশ বলে স্বনাক্ত করেছেন।
মোকাতলায় প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন সিএনজি চালক জানায়, মোফাজ্জল হোসেন শনিবার সন্ধ্যার দিকে মহিমাগঞ্জের দিকে সিএনজিতে নারী ২পুরুষকে নিয়ে যেতে দেখেছেন অনেকেই। পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছেন তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার সিএনজি ছিনতাই করে দূর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। অনেকেই বলছেন সিএনজির কারনে জীবন গেল চালক মোফাজ্জলের।

Facebook Comments (ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্ট করুন)

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন